বাংলা সিরিয়াল

এবারে জি বাংলা রান্নাঘরের সঞ্চালিকা সুদীপা চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে হানা দিল একদল হনুমান, সোশ্যাল মিডিয়ায় সেইসব ছবি পোস্ট করলেন তিনি

বর্তমানে প্রায়শই সোশ্যাল মিডিয়ার ট্রোল হতে দেখা যায় জি বাংলার রান্নাঘরের সঞ্চারিকা সুদীপা চট্টোপাধ্যায় কে। নিজের বিভিন্ন কর্মকান্ডের জন্য তিনি এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায়শই চর্চায় থাকেন। নিজের দম্ভ, অহংকারের জন্য মানুষ তাকে নিয়ে ট্রোল করে। আর সুদীপার কারণে এই ট্রোল সমালোচনা থেকে তার পরিবারের লোকজন ও বঞ্চিত হন না।

সম্প্রীতি আবারো সুদীপার একটি পোস্ট ঘিরে শুরু হয়েছে সমালোচনা। কিছুদিন আগেই সুদীপার বাড়িতে হানা দিয়েছিল একদল হনুমান এবং সেই হনুমানদের সঙ্গেই খুব অল্প সময়ের মধ্যে বন্ধুত্ব পাতিয়ে নিতে দেখা গিয়েছে সঞ্চালিকার ছোট্ট ছেলে আদিদেব কে।

সম্প্রতি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে বেশ কয়েকটি ছবি এবং একটি লেখা শেয়ার করেছেন সুদীপা সেখানে সুদীপা লিখেছিলেন যে “আজকাল প্রায়ই এই হনুমানের দলটি,প্রথমে ধপ্ করে এসে,ছাদে এসে পড়ে- কিছুক্ষন দাপাদাপি করে,ভান্টু-বাঁটুলকে-গলুকে (আমাদের আদরের তিনটি কুকুরকে) দাঁত খিঁচিয়ে, ঠিক এই জানলায়- যেখানে ফ্রিজ আছে,সেখানে এসে হইহই করে। হনুমানের এত ভালো পর্যবেক্ষন ক্ষমতা যে সে ঠিক ধরে ফেলেছে- ফ্রিজেই খাবার থাকে। এরা একটা গোটা পরিবার। মা,বাবা,ছোট ছেলে-মেয়ে। মোট ৫জন।

আজ আদির হাত থেকেও খেলো। আমি আদর করলাম। হাতে হাত বুলিয়ে দিলুম। বেশ ভালো। আমাদের বরাহনগরের বাড়ীতে- প্রায়ই দক্ষিনেশ্বর থেকে হনুমানের দল আসতো। এত বছর পর,এক চিলতে ছেলেবলা ফেরত পেয়ে- বেশ লাগছে। কিন্তু,আমার ছাঁদের বাগানের ওপর ওদের নজর- মোটেই পছন্দ হয়নি ভান্টু বাবাজীবনের। খুব শিগগিরি,একটা রাম-বারনের যুদ্ধ লাগলো বলে। সেই ভয়েই কাবু হয়ে আছি। ভান্টুকে একখানা চড় তো দেবেই কষিয়ে। তখন কি করবো?”

আর ইতিমধ্যে এই ছবিগুলিতে তিন হাজারের বেশি লাইক পড়েছে। অসংখ্য মানুষ এই ছবিতে কমেন্ট করেছেন। একেক জন নেটিজেন একেক ধরনের কমেন্ট করেছেন ছবিতে। বেশিরভাগ মানুষই ইতিবাচক কমেন্ট করেছেন।

Back to top button