বাংলা সিরিয়াল

বিক্রমকে বাঁচাতে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হবে অনামিকা! ১২ বছর আগের দুর্ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখে কি সুস্থ হয়ে উঠবে অনামিকার দিদি বৈশালী? কোন দিকে মোড় নেবে লালকুঠির গল্প?

জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক লাল কুঠি। রহস্য রোমাঞ্চ মেশানো এই ধারাবাহিকে বর্তমানে দেখানো হচ্ছে যে জিনির বাবা মাকে কে মেরেছে সেটা জানবার জন্য আসল জিনি অর্থাৎ অনামিকা বিক্রম দের বাড়িতে একটি নকল জিনিকে সাজিয়ে এনেছে। এই জিনিকে দেখে সকলে ভয় পেলেও আসলে বিক্রম কিন্তু জানে এই মেয়েটি নকল জিনি আর আসল জিনি যে অনামিকা সেটাও তার স্থির বিশ্বাস। এই স্থির বিশ্বাসের উপর ভর করে অনামিকা নানান রকম কাণ্ডকারখানা ঘটাচ্ছে কখনো সে বারবার নকল জিনির প্রশংসা করছে তার ওপর বিশ্বাস করার কথা বলছে যা দেখে আসল জিনি অর্থাৎ অনামিকা রেগে যাচ্ছে এবং বিক্রম আর অস্থির নিশ্চিত হয়ে যাচ্ছে যে অনামিকা‌ই আসল জিনি।

এছাড়া বিক্রম গত দুদিনে অনামিকাকে ভালো করে নোটিশ করে বুঝতে পেরেছি যে অনামিকা আসলে বাঁ হাতি যেটা জিনি ছিল। এই ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে যে বিক্রম যেহেতু দত্ত এন্ড সন্সের ব্যবসায় কোনরকম ক্ষতি বরদাস্ত করবে না কারণ সে মনে করে এই ব্যবসা জিনি ও বৈশালীর। এই ব্যবসার ওপর শুধু দুজনেরই অধিকার আছে এবং তারা ফিরে এলে ও স্বেচ্ছায় এই ব্যবসা তাদের হাতে সমর্পণ করবে তাই সে তার বড় দাদা শৌর্যকে এই ব্যবসার থেকে অকারণে টাকা সরাতে মানা করেছে, তার জন্য শৌর্য রেগে গিয়েছে এবং সে বিক্রমকে মারার প্ল্যান করছে আর সেই জন্য‌ই পিকনিকের আয়োজন করেছে।

কিন্তু সম্প্রতি রুকমা রায়(ধারাবাহিকের অনামিকা ও আসল জিনি) অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি থাকার একটা ছবি শেয়ার করেছেন যা দেখে তার ভক্তরা মনে করছেন যে বিক্রমকে বাঁচাতে হয়ত অনামিকার ক্ষতি হবে। একজন নেটিজেন যেমন সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন যে, “শৌর্য বিক্রমকে মারার যে প্ল্যান করেছে তাতে বিক্রমের বদলে অনামিকার হয়তো কিছু হবে।বিক্রমকে বাঁচাতে গিয়েই অনামিকা হসপিটালে যাবে। আমি কি খুশিইইই!!

এবার বিক্রম বউয়ের যত্ন নেবে, খাইয়ে দেবে, শাড়ী পড়ানোয় হেল্প করবে। এক্কে বারে কেয়ারিং হাজবেন্ড কে দেখতে পাবো আশা করি। আপকামিং আবারও খুব ইন্টারেস্টিং সিন্স আমরা পেতে চলেছি হয়তো।
আফসোস এত ভালো এপিসোডের কোনো প্রোমো নেই।”

Back to top button