বাংলা সিরিয়াল

‘ধারাবাহিকের সব ক্ষেত্রেই প্রেস পৌঁছে যায় আর তাদের খালি জোর করে বিয়ে দেওয়ানোই কাজ!’ ব্যাপক ট্রোলের মুখে গাঁটছড়ার নতুন প্রোমো

কিছুদিন আগেই গাঁটছড়া ধারাবাহিকের একটি প্রোমো রিলিজ হয়েছিলো যেখানে দেখা যাচ্ছিলো যে বনি ও কুনালের বিয়ে দিয়ে তাদেরকে সিংহরায় বাড়িতে নিয়ে এসেছে খড়ি। এরপর খড়ি বলে যে, বনি আর কুনালের প্রাণ বাঁচানোর জন্য ওদের বিয়ে দিতে আমি বাধ্য হলাম! তখন দ্যুতি তাকে বলে, জিও খড়ি তোর জন্য আমরা তিন বোনই হলাম সিংহ রায় পরিবারের বউ!- দুর্দান্ত এই ধামাকাদার এপিসোড এখনো অবধি গাঁটছড়াতে দেখানো না হলেও এই এপিসোড দেখানোর সময় যে খুব একটা দূরে নেই তা সকলেই বুঝতে পারছেন।

কারণ সম্প্রতি ধারাবাহিকে কুনালের বিয়ের তোড়জোড় চলছে, অন্যদিকে বনি কুনালের প্রতি মনে মনে দুর্বল হয়ে পড়েছে, কিন্তু কুনাল বনি কে শুধুমাত্র একজন ভালো বন্ধুর চোখে দেখে, ভালো বন্ধুত্ব সেই দৃষ্টিভঙ্গির সরিয়ে কুনালের মধ্যে বনির প্রতি ভালোবাসা তৈরি হয়নি। তাই কুনাল বনির মানসিকতা মন কিছুই বুঝতে পারে না। সে বিয়ের মেহেন্দি থেকে শুরু করে গায়ে হলুদ প্রত্যেকটি অনুষ্ঠানে বনিকে তার কাছে বন্ধু হিসেবে পেতে চায়। এই সকল অনুষ্ঠানে থাকতে থাকতে বনি সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয় সে কুনালের থেকে অনেক দূরে চলে যাবে। কিন্তু কুনালের থেকে আর তার দূরে যাওয়া হয় না।

গাঁটছড়া ধারাবাহিকে কুনালের বিয়ে আর কিছুক্ষণ পরেই হবে, এমন সময় সে বনির বিপদের খবর পায়। বনি কে বাঁচাতে বিয়ের মন্ডপ ছেড়ে সে ছোটে। এরপর বনিকে যখন সে উদ্ধার করে তখন সেখানে মিডিয়া পৌঁছে যায় এবং তারা খবর করে যে, একটা ফ্যাক্টরির মধ্যে একজন ছেলে এবং মেয়েকে অপ্রস্তুত অবস্থায় দেখা গেছে, এই খবর শুনে স্থানীয় বাসিন্দারা অত্যন্ত রেগে যান তারা বনি আর কুনালকে মারবার জন্য তাদের পিছন পিছন ছুটতে থাকেন। এই সময় তাদের প্রাণ বাঁচাতে খড়ি গিয়ে উপস্থিত হয়। খড়ি তাদের ওপর আসা আঘাত থেকে তাদের বাঁচায়, এরপর উত্তপ্ত ও মারমুখী জনতার হাত থেকে কীভাবে বনি আর কুনাল কে বাঁচাবে খড়ি এই প্রশ্ন উসকে দেওয়া হয় প্রোমোর মধ্য দিয়ে!

এই প্রোমো দেখার পরে দর্শকরা জিজ্ঞেস করছেন, ধারাবাহিকে জনতারা কি সবসময় মারমুখী হয়েই থাকেন? নেটিজেনদের একাংশ আবার এও জিজ্ঞেস করেছেন যে, সিরিয়ালে যাই হোক না কেন সব জায়গাতেই প্রেস পৌঁছে যায় মুহূর্তের মধ্যে আর তাদের আর কোন কাজ নেই ছেলেমেয়েদেরকে জোর করে বিয়ে দেওয়ানোটাই যেন কাজ!

Back to top button