বাংলা সিরিয়াল

নিজের স্বামীর বিয়ে দেখতে পারবে না সহচরী! তাই একমাত্র কাছের বন্ধু বরফির কাছে মনের দুঃখ ভাগ করে নিলো সহচরী

বর্তমানে বাংলা ধারাবাহিক গুলির মধ্যে অন্যতম একটি হলো স্টার জলসার ‘আয় তবে সহচরী’। TRP তালিকাতেও এই ধারাবাহিক বেশভালো স্থানে রয়েছে। ধারাবাহিকটি প্রথমদিকে ভিন্নধরনের গল্প নিয়ে শুরু হওয়ার কারণেই দর্শকের মনে বিশেষভাবে জায়গা তৈরি করে নিয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে আর পাঁচটা সাধারণ একঘেয়ে সিরিয়ালের মতনই হয়ে উঠেছে এই ধারাবাহিক। সম্প্রতি ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে যে সহচরী সমরেশ কে ডিভোর্স দিয়ে সেনগুপ্ত বাড়ি ছেড়ে চলে এসেছে। কিন্তু তাও সমরেশকে পুরোপুরি ভুলতে পারছেনা সহচরী। স্বামীর প্রতি একটা টান রয়েই গেছে তার। আর নিজের এই দুঃখের কথা নিজের সবচেয়ে কাছের বন্ধু বরফি র সঙ্গে ভাগ করছে সে। অসম বয়সী এই বন্ধুত্বের গল্প দিয়েই শুরু হয়েছিল এই ধারাবাহিকের যাত্রা।

ধারাবাহিকের শুরুতেই দেখানো হয় যে সহচরী একজন সাধারণ গৃহবধূ। নিজের পরিবারের জন্য সে সবটা উজাড় করে দেয়। সকলকে ভালোবেসে কাছে টেনে নেয়। দিনরাত সকলের সেবা যত্নে নিজেকে ব্যস্ত রাখে। কিন্তু তাকে কেউ ভালোবাসে না। তার খোঁজ টুকু কেউ রাখে না। তার স্বামীও তাকে পছন্দ করে না। আর ঠিক সেই মুহূর্তেই সহচরীর আলাপ হয় বরফির সাথে। এরপর দুজনের মধ্যে বন্ধুত্ব হয়। এরপর ধারাবাহিকের গল্প এগোতে থাকে। বরফি র সঙ্গে বিয়ে হয় সহচরীর ছেলে টিপুর।

আর এইদিকে সমরেশ নিজের ছাত্রী দেবীনার প্রেমে পড়ে, তার সাথে বিয়েও ঠিক হয়। দেবীনা সহচরী সংসারে দখল নিয়ে বসে এমনকি তার জীবন অগোছালো করে দেয়। যার ফলে সমরেশ কে ডিভোর্স দিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতেও বাধ্য হয় সে। আর জীবনে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য সহচরী চাকরি জোগাড় করে নিয়েছে। রেডিও স্টেশনে চাকরি পেয়ে নিজেকে প্রমাণ করেছে সে।

চাকরি পেয়েই সহচরী সমরেশ কে ডিভোর্স দিয়েছে। কিন্তু এখনও মনে মনে স্বামী কে ভুলতে পারেনি। অন্যদিকে দেবিনা সমরেশ কে তার সাথে বিয়ে করতে বাধ্য করেছে। কারণ দেবিনা দাবি করছে তার গর্ভে নাকি সমরেশ এর সন্তান রয়েছে। আর এইদিকে সই নিজের স্বামীর সাথে অন্য কারোর বিয়ে দেখতে পারবে না তাই বরফি র সাথে মনের কথা ভাগ করে নিচ্ছে। বর্তমানে সেনগুপ্ত বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে বরফি র মামাবাড়িতে থাকছে সে।

আর এরই মধ্যে সামনে এসেছে ধারাবাহিকের মজার একটি ভিডিও। সেখানে দেখা যাচ্ছে যে সমরেশ এর গায়ে হলুদের সময় হলুদের বাটিতে কে ইচ্ছে করে চুলকানির ওষুধ মিশিয়ে দিয়েছে। আর তাই মেখে সকলেরই চুলকানি শুরু। আসলে এসবই বরফির কাজ। শ্বশুর এর বিয়ে আটকাতে তার এই সব কারসাজি। এবারে দেখার অপেক্ষা আগামী দিনে কি হতে চলেছে ধারাবাহিকে।

Back to top button