বাংলা সিরিয়াল

ত্রিনয়নী থেকে মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের ভূমিকায় কাজ করতে চান শ্রুতি দাস!

জি বাংলার জনপ্রিয় ‘ত্রিনয়নী’ ধারাবাহিক দিয়ে টেলিভিশন জগতে তার পথ চলা শুরু, এরপর তিনি হয়ে উঠেছিলেন দেশের মাটি ধারাবাহিকের নোয়া। টেলিপাড়ার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রুতি দাস শ্যামলা গায়ের রঙের জন্য বরাবর কটাক্ষের শিকার হলেও থেমে থাকেননি, নিজের লড়াই জারি রেখেছেন। সম্প্রতি তার অভিনীত ‘ত্রিনয়নী’ বাংলা, তামিল ছাড়াও একাধিক ভাষায় তৈরি হয়েছে। এই প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেন,“ প্রথম কাজ সকলের কাছেই মনে রাখার মত হয়। আমার কাছেও আমার প্রথম কাজটা খুবই স্পেশাল ছিল। সেই কাজটা শেষ হওয়ার এত বছর পর এতগুলো ভাষায় কাজটির রিমেক হতে দেখছি। খুবই ভালো একটা অনুভূতি কাজ করছে। ওই ধারাবাহিকের নাম ভূমিকায় কাজের সৌভাগ্য হয়েছিলো ফলে আমার এই মুহূর্তে নিজেকে খুব সৌভাগ্যবান লাগছে। প্রথমবার ত্রিনয়নীর চরিত্রে আমি অভিনয় করেছিলাম এটা ভেবে ভালো লাগছে।”

একটি ধারাবাহিক নিয়ে বিভিন্ন ভাষায় গল্প তৈরি হওয়া প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেন,“ গল্পটা মানুষের ভালো লেগেছিল বলেই হয়তো দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই কাজটা ছড়িয়ে পড়েছে। কাজটি শেষ হওয়ার পরেও সেটি নিয়ে চর্চা চলছে। দেখে ভালো লাগছে।” এই ধারাবাহিকের সিজন টু আসলে কি তিনি অভিনয় করতে চাইবেন? এই সম্পর্কে অভিনেত্রী বলেন, “অবশ্যই চাইবো। এই ধারাবাহিকের দ্বিতীয় সিজন হোক। সিরিয়ালটি যারা ভক্ত ছিলেন তারাও মাঝেমধ্যেই আমার কমেন্ট বক্সে লেখেন। ওই সিরিয়ালের কামব্যাকের দাবি তোলেন। তাছাড়া গৌরব আর আমার অন স্ক্রিন কেমিস্ট্রি টাও ভালো ছিল। ধারাবাহিকের সিজন ২ এলে মন্দ হয় না।”

অভিনেত্রী জানাচ্ছেন সম্প্রতি ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন রূপে ফিরে আসতে চেয়েছেন তিনি, তাই খল চরিত্রে অভিনয় করার কথা ভেবে অডিশনও দিয়েছিলেন কিন্তু তাকে নেওয়া হয়নি, রিজেক্ট করা হয়েছে, তবে এত সহজে হাল ছাড়ার মেয়ে নন শ্রুতি। তিনি চেষ্টা করছেন খুব শীঘ্রই আবার অন্য রূপে ফিরে আসার। এরপর অভিনেত্রী কে জিজ্ঞেস করা হয় যে, তার কোন স্বপ্নের চরিত্র আছে কি? এর উত্তরে অভিনেত্রী বলেন, “আমার ড্রিম ক্যারেকটার মহানায়িকা সুচিত্রা সেন। কখনো যদি তার বায়োপিক হয় আর সেখানে মহানায়িকার ভূমিকায় কাজের সুযোগ পা‌ই। তাহলে আমার সব স্বপ্ন পূরণ হয়ে যাবে।”

Back to top button