বাংলা সিরিয়াল

‘চ্যানেল বদলায়, ধারাবাহিক বদলায় কিন্তু শ্রাবণী ভুঁইয়ার চরিত্র এক‌ইরকম থেকে যায়, একই রকম একঘেয়ে চরিত্র না দিয়ে নতুন কিছু তো করানো যায় ওকে দিয়ে’ মাধবীলতা দেখার পরে দর্শকদের অভিযোগ শ্রাবনী এযাবৎকাল প্রতিটি ধারাবাহিকেই একই চরিত্রে অভিনয় করে গিয়েছেন!

টেলিভিশন জগতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবণী ভুঁইয়া। তিনি যত ভালো অভিনয় করেন তত সুন্দর দেখতে কিন্তু সমস্যা হচ্ছে ধারাবাহিকে অভিনীত তার চরিত্রগুলি সব সময় একই ধরনের হয়। দর্শকরা বলেন, শ্রাবণীর চরিত্র মানে অনেকটা আত্মত্যাগী। শ্রাবণী এর আগে যে ধারাবাহিক গুলি অভিনয় করেছেন সেগুলি হল রাখি বন্ধন ,জীবন সাথী, কনক কাঁকন- এইসব ধারাবাহিক গুলোতেই দেখা গিয়েছিল ভাই বোনের সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে তার জীবনটা শেষ হয়ে যাচ্ছে। একই রকম চরিত্রে অভিনয় করছেন শ্রাবণী মাধবীলতা ধারাবাহিকেও।

প্রতিটি ধারাবাহিকেই দেখা যায় যে শ্রাবনীর অভিনীত চরিত্রের ব্যক্তিগত জীবন বলে কিছু থাকে না। তার অভিনীত চরিত্রগুলি অনেকটা বহু জন হিতায় উৎসর্গীকৃতর মত।

শ্রাবণীর প্রথম ধারাবাহিক রাখি বন্ধনে দেখা গিয়েছিলো তার দাদা বন্ধনের স্মৃতিশক্তি চলে যায় এবং সেই স্মৃতিশক্তি ফেরানোর জন্য তার জীবনটা পুরোটা কেটে যায়। শ্রাবণীর পরের ধারাবাহিক কনক কাঁকনে দেখা গিয়েছিল তার দিদি হাঁপানীর রোগী, পুরো ধারাবাহিকটাতে শ্রাবণী দিদিকে সুস্থ করতে করতেই চলে যায়।

শ্রাবণীর তিন নাম্বার ধারাবাহিক জীবন সাথী তেও এই একই গল্প। এই ধারাবাহিকে দেখা যায় যে, শ্রাবনীর বোনের গায়ের রং কালো তাই তার বৈবাহিক জীবনে কিছু সমস্যা উপস্থিত হয়েছে। সেই সকল সমস্যার সমাধান করতেই কেটে যায় পুরো ধারাবাহিকটি তার ব্যক্তিগত জীবন সেখানে প্রাধান্য পায় না।

সম্প্রতি মাধবীলতা ধারাবাহিকে তার চরিত্রটি মুখ্য হলেও এখানেও দেখানো হচ্ছে যে তার বোনকে নিয়েই সে ব্যস্ত। ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে যে মাধবীর বড় দিদি মানসিক ভারসাম্যহীন, তাকে নিয়েই সর্বক্ষণ সে পড়ে আছে দিদিকে কীভাবে সুস্থ করা যায় সেদিকেই তার নজর। তাই নেটিজেনরা বলেন যে, প্রত্যেকটি ধারাবাহিকের শ্রাবণীর চরিত্র এক, গল্প বদলায় কিন্তু শ্রাবণী এক রকম থাকে। তার পুরো জীবনটাই দাদা বোনদের সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে কেটে যায়। নিজের জীবন বলে আর কিছু থাকে না। শ্রাবণীর অভিনীত চরিত্র গুলোর মধ্যে একঘেয়েমি চলে এসেছে। নতুন কিছু‌ও তো করানো যায়, ওকে দিয়ে।

Back to top button