বাংলা সিরিয়াল

অভিমানে চিঠির ভাত কাপড়ের দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করল সাহেব! চিঠি কি পারবে সাহেবের হারিয়ে যাওয়া আত্মবিশ্বাস আবার ফিরিয়ে দিতে? ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো নজর কাড়লো সকলের

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক সাহেবের চিঠি রীতিমতো জমে উঠেছে। এমনিতেই বিয়ের ট্র্যাক আসার পর এই ধারাবাহিক স্লট লিডার হয়েছে, জয়েন্টলি খেলনা বাড়ির সাথে স্লটলিড করেছে এই ধারাবাহিক আর এই ধারাবাহিকটি আস্তে আস্তে দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছে। কিছুদিন আগের একটি এপিসোডে দেখা গিয়েছিল যে বারণ সত্ত্বেও কাল রাত্রির দিন একে অন্যের মুখোমুখি হয়ে যায় সাহেব চিঠি।

চিঠির গান শুনে সাহেব নীচে নেমে আসে কারণ চিঠির গানের প্রত্যেকটা শব্দ সাহেবের মনের কথা। সাহেব অবাক হয়ে যায় যে চিঠি কিভাবে এই গানটা গাইতে পারে সে কি করে সাহেবের মনের কথাগুলো বুঝতে পারে? এই কারণে চিঠির গান শুনে সাহেব নিচে নেমে এলে চিঠির সাথে সে মুখোমুখি হয়ে যায়। চিঠি কালরাত্রির নিয়ম মেনে মুখে ঘোমটা টেনে দেয় যাতে সাহেবের মুখ তাকে দেখতে না হয়। সম্প্রতি বৌভাতের দিন নিয়ম অনুযায়ী সাহেবকে চিঠির ভাত কাপড়ের দায়িত্ব নিতে হবে। কিন্তু অভিমানবশত সাহেব চিঠির ভাত কাপড়ের দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করে।

তার মা যখন তাকে বলে চিঠির হাতের থালা কাপড় শাড়ি ধরিয়ে তার ভাত কাপড়ের দায়িত্ব নিতে হবে, তখন সাহেব বলে না চিঠি আমি আপনার ভাত কাপড়ের দায়িত্ব নিতে পারব না যে মানুষ নিজের দু পায়ে দাঁড়াতে পারেনা যে মানুষ নিজে হাঁটতে পারে না সে মানুষ অন্যের ভাত কাপড়ের দায়িত্ব কি করে নেবে? এরপর দেখা যায় ভাতের থালাটা পড়ে যাবার উপক্রম হলে সাহেব সেটা ঠিক সামলে নেয়। এরপর চিঠি বলে আপনি যেমন আজ ভাতের থালাটা পড়ে যাওয়া থেকে আটকে নিলেন তেমনি একদিন আপনি ঠিক আমার ভাত কাপড়ের দায়িত্ব নিতে পারবেন।

এই ভিডিওটি শেয়ার করবার সময় স্টার জলসার ক্যাপশন ছিল, “অভিমানে চিঠি-র ভাত কাপড়ের দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করল সাহেব। তার হারিয়ে যাওয়া আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনার শপথ নিল চিঠি।”

Back to top button