বাংলা সিরিয়াল

শাঁখা সিঁদুর খুলে থাইল্যান্ডে হট অবতারের বাঙালি মেয়ে রোশনি! সোশ্যাল মাধ্যমে ছবি দিতেই ধেয়ে এলো কটাক্ষ, চুপ থাকলেন না নায়িকাও

টলিউডে(Tollywood)র এখন বিয়ের মরসুম। দিনকয়েক আগেই বিয়ের পিঁড়িতে বসেছিলেন টেলিপাড়ার অভিনেত্রী রোশনি ভট্টাচার্য(Roshni Bhattacharya)। তারপরেই সোজা স্বামী তূর্য্য সেনের সঙ্গে উড়ে গিয়েছেন ফুকেত। থাইল্যান্ডের বিভিন্ন জায়গায় ছুটি কাটাতে দেখা যাচ্ছে এই নব দম্পতিকে। তবে তাদের বিয়েটা ২.০ বলে মনে করেন অভিনেত্রী। কারণ গত বছর একই পাত্রের সঙ্গে ১৩ অক্টোবর বিয়ে সেরেছিলেন গোধূলি আলাপের(Godhuli Alap) এই রোহিনী। তবে সেটা ছিল খাতায়-কলমে। আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর।

যদিও সেটা সম্ভব হয়নি। কারণ আচমকাই বিয়ের আগে প্রয়াত হন তূর্য্যর বাবা। স্বাভাবিকভাবেই একটা গোটা বছর পিছিয়ে যায় রোশনি বিয়ে। তবে দেখতে দেখতে একটা বছর কেটেও গেল। নতুন বছরের এই বিশেষ দিনও এসে গেল। আপাতত বিয়ের পরবর্তী পর্ব চুটিয়ে মজা করছেন রোশনি এবং তূর্য্য। অন্তত তাদের সোশ্যাল মাধ্যম সে কথাই বলছে। হানিমুনের ছবিতে ভরে উঠেছে দুজনের ইনস্টাগ্রাম( Instagram)।

আর সেখানেই শুরু হয় যাবতীয় কটাক্ষ। সোশ্যাল মাধ্যমিক ছবি আসতেই গুরুতর সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে এই ছোট পর্দার অভিনেত্রীকে। থাইল্যান্ডের নিজের পছন্দের পোশাকে সেজেছেন তিনি। যা বেশ খোলামেলা। কখনো ওয়ান পিস আবার কখনো শর্ট এবং বিকিনি টপে দেখা গিয়েছে তাকে। শরীরে সর্বত্র ছড়িয়ে রয়েছে আধুনিকতার ছোঁয়া। কিন্তু নিজের পছন্দের পোশাকে সাজতে গিয়ে খুলে ফেলেছেন শাঁখা পলা। বেজায় চটেছেন নেটিজেনরা।

তবে প্রথম দিন শাঁখা পলা পড়ে রওনা দিয়েছিলেন তারা। ধীরে ধীরে নিজের সাজবদল করেছেন রোশনি। নিজের পছন্দ, আনন্দকে গুরুত্ব দিচ্ছেন তিনি। সেইটাই না পসন্দ অনেকের। একজন লিখেছেন, বিয়ে করার সঙ্গে সঙ্গে শাখা পলা সিঁদুর উধাও। মৌনি রয় বলিউডে থেকেও কিন্তু শাঁখা-সিদুর পড়েছিলেন কতদিন। এমনই নানা মন্তব্য আসতে থাকে তার ছবিকে ঘিরে। স্বাধীনতা প্রশ্নের মুখে পড়তেই রোশনি সেই কটাক্ষ সমালোচনার উত্তর দিয়েছেন। অট্টহাসির বেশ কয়েকটি ইমোজি দিয়ে। কথা না বলেই বুঝিয়ে দিলেন এই সমালোচনাগুলোকে তিনি হেসে উড়িয়ে দিতেই পছন্দ করেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Turjya Sen (@typsyjoe)

আপাতত ফুকেতে গিয়ে আর পাঁচটা বাঙালির মতো বাজার ঘুরে ঘুরে দেখছেন রোশনি। এখানকার ছবি দিয়ে লিখলেন বাজার তো যেতেই হত কিছু বাঙালি অভ্যেস। এছাড়াও মাঝেমধ্যে কিছু সুস্বাদু খাবার শরবত এবং বারবিকিউ নানা ধরনের লোভ বাড়ানো ছবি দিচ্ছেন রোশনি।

Back to top button