বাংলা সিরিয়াল

নোলক কে বিপদে ফেলতে গিয়ে নিজেই জব্দ হলো শাশুড়ি মার কাছে, শ্বশুর বাড়িতে ঢোকার অনুমতি পেল না রোহিনী

বর্তমানে স্টার জলসার অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো ‘গোধূলি আলাপ’। শুরু থেকেই দর্শকের মনে এই ধারাবাহিক বিশেষ জায়গা করে নিয়েছিল। অরিন্দম এবং নোলকের চরিত্র দুটি দর্শকের বিশেষ পছন্দের হয়ে উঠেছিল ধীরে ধীরে। বর্তমানে ধারাবাহিক জমজমাট পর্ব চলছে। যারা এই ধারাবাহিকের নিত্য দর্শক তারা প্রত্যেকেই জানেন কিছুদিন আগেই ধারাবাহিকে অরিন্দম এবং নোলক এর বিয়ের পর্ব দেখানো হচ্ছিল। আর সেই বিয়েতেই বাঁধা দেয় রোহিনী নোলককে নাবালিকা প্রমাণ করে অরিন্দমের সঙ্গে বিয়ে আটকে দেয় সে এবং অরিন্দমকেও পুলিশ ধরে নিয়ে যায়।

অন্যদিকে নোলক দাবি করে সে নাবালিকা নয়, তার ১৮ বছর পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। আর সে সবার সামনে সেটি প্রমাণও করে দেবে। তাই প্রমাণ জোগাড় করতে নিজের গ্রামের বাড়ি ছুটে যায় নোলক। সেখানে গিয়েও নোলক দেখে নোলকের বাপের বাড়িতে কেউ আগুন লাগিয়ে দিয়েছে এবং নোলকের বাবা কেও গ্রেফতার করা হয়। যদি এই সমস্ত ষড়যন্ত্রের পিছনে রয়েছে রোহিণী। এরপর আদি এবং জয়ন্ত মিলে অরিন্দমের আদেশ অনুযায়ী নোলককে গ্রাম থেকে ফিরিয়ে আনে।

অন্যদিকে রোহিণীকে উচিত শিক্ষা দেয় তার শাশুড়ি মা অরুন্ধতী। শ্বশুরবাড়িতে ঢুকতে দেয় না তাকে। কিন্তু রোহিণী শ্বশুরবাড়িতে ঢোকার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। এরই মধ্যে নোলক ছুটে যায় অরিন্দমের সঙ্গে জেলে দেখা করতে এবং জেলে গিয়ে সে অরিন্দমকে বলে “খোকা গুন্ডা তো লোকের জমি কেড়ে নিতো আর এখানে তো রোহিণী আমার পায়ের তলার জমি কেড়ে নিয়েছে, আপনার সম্মান কেড়ে নিয়েছে। তাকে আপনি শাস্তি দেবেন না উকিল বাবু?”। এবার শুধু দেখার অপেক্ষায় নোলক কিভাবে অরিন্দমকে জেল থেকে বার করে আনে সঠিক প্রমাণ দিয়ে। আর জেল থেকে বেরিয়ে এসে নোলক এবং অরিন্দম মেলে কিভাবে রোহিণীকে শাস্তি দেয়।

Back to top button