বাংলা সিরিয়াল

‘গাঁজাখুরি! একটা করে আগের গার্লফ্রেন্ড থাকছে, আর যাকে তাকে বিয়ে করে ফেলছে’, আহিরের সঙ্গে পিলুর মহাপরিণয় দেখে ক্ষেপে লাল নেটিজেনরা!

গানের প্রেক্ষাপট থেকেই জি বাংলার পর্দায় শুরু হয়েছিল ‘পিলু’ ধারাবাহিক। এই ধারাবাহিক শুরু থেকেই নজর কেড়েছিল দর্শকদের। তবে সম্প্রতি আবারও অনেকের মতে, সেই একই গতানুগতিক ধারাবাহিকের ধাঁচে পরে যাচ্ছে পিলু। তবে সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো। সম্প্রতি সেই প্রোমো প্রকাশ পাওয়ার পর থেকেই রীতিমতো শোরগোল পড়েছে দর্শকমহলে।

ধারাবাহিকে পুরুলিয়ায় টুসু উৎসবের সময় পিলুর সাথে আহিরের উড়ন্ত বিয়ে হয়েছিল। একে অপরের গলায় নিজেদের অজান্তেই ছুঁড়ে মালা পরিয়ে দিয়েছিল তারা। পরে সেখানে উপস্থিত পুরোহিতমশাই তাকে বলে তাদের বিয়ে হয়ে গেছে। সে তার আরাধ্য দেবতা হনুমানজির কাছে জানতে চায় একথা সত্যি কিনা! সেইসময় হনুমানজির থানে মাথা ঠেকাতে গিয়ে তার সিঁথিতে সিঁদুর লেগে যায়। এরপর থেকে পিলু আবিরকে অর্থাৎ নিজের পন্ডিতজিকে স্বামী হিসেবে মেনে নেয় মনে মনে। কিন্তু আহির এই সমস্ত বিষয়ে বিশ্বাস না করায় সে এই বিয়ে মেনে নেয়নি। বরং পিলুকে তোর সিঁথি থেকে সিঁদুর মুছে ফেলার পরামর্শ দিয়েছিল।

তবে সম্প্রতি প্রকাশ পাওয়া প্রোমোতে দেখা যাচ্ছে পন্ডিতজির সম্মান বাঁচাতে পিলুর হাত ধরে মণ্ডপে টেনে নিয়ে গিয়ে সিঁদুর পরিয়ে দেয় আহির। আহিরের সাথে প্রথমবার বিয়ে হওয়ার পর দর্শকমহলে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল। তবে এবার কোনরকম বিতর্ক হওয়ার অবকাশ রাখেনি আহির। রঞ্জা ও আহিরের বিয়ের আসরে আহিরের বাবা এসে তার পন্ডিতজি আদিত্যনারায়ণকে অপমান করতে থাকেন।

কিন্তু আহিরের কাছে তার পন্ডিতজি ভগবানের সমান। সেইজন্যই রঞ্জা বা পিলু কারোর কথায় কান না দিয়ে পিলুর হাত ধরে তাকে সোজাসুজি মন্ডপে নিয়ে এসে বসায়। এরপর পিলুর শত বারণ সত্ত্বেও সকলের সামনে রঞ্জা ও তার বিয়ের মন্ডপে পিলুকে সিঁদুর পরিয়ে দেয় আহির। এরপর তাদের দুজনের সম্পর্ক কোন দিকে মোড় নেবে? ধারাবাহিকের গল্পই বা কোনদিকে গড়াবে? তা জানার জন্য চোখ রাখতে হবে জি বাংলার পর্দায়।

Back to top button