বাংলা সিরিয়াল

নিজের স্বামীকে কিছুতেই অন্যের সঙ্গে ভাগ করে নিতে রাজি নয় ফুলঝুরি, তৃতীয় ব্যক্তি তিতির কে ঘিরে লালন এবং ফুলঝুরির দাম্পত্য জীবনে অশান্তি

বর্তমানে জমে উঠেছে স্টার জলসার ধুলোকণা ধারাবাহিক। এই সপ্তাহতে আবারও এই ধারাবাহিক বেঙ্গল টপার হয়েছে। প্রতিদিনের নিত্য নতুন চমক নিয়ে হাজির হচ্ছে এই ধারাবাহিক। তাইজন্য আবারও সকল ধারাবাহিককে পেছনে ফেলে এই ধারাবাহিক বেঙ্গল টপার হয়েছে।

ধারাবাহিকে কয়েকদিন আগেই দেখানো হয়েছে লালন তার সমস্ত স্মৃতিশক্তি ফিরে পেয়েছে। স্টেজে গান গাইতে গিয়ে লালনের সব স্মৃতি ফিরে এসেছে। এর পরবর্তী পর্বগুলোকে দেখানো হয় তিতির প্ল্যান করেই লালনের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেছিল যাতে লালনের সব স্মৃতি ফিরে আসে। এটা পুরোটাই তার একটা এক্সপেরিমেন্ট ছিল। যাতে সে লালন কে ফুলঝুরির কাছে ফিরিয়ে দিতে পারে।

কিন্তু তিতির লালন কে ফুলঝুড়ির কাছে ফিরিয়ে দিলেও লালন পুরোপুরি ভাবে তিতির কে ভুলতে পারে না। তিতিরের প্রতি লালনের একটা অজানা টান রয়েই যায়। যার ফলে সেই টানে বারবার লালন তিতির এর কাছে ছুটে যায়। আর এটাই ফুলঝুরি একেবারে মেনে নিতে পারছে না।

সে লালন কে জানিয়ে দেয় যে সে যে কোন একটা দিক বেছে নিতে হবে। নয় তিতির নয় ফুলঝুরি। যেকোনো একজনের হাত ধরতে হবে। আর ফুলঝুরির ব্যবহারে লালন ভীষণ রেগে যায়। লালন বুঝতেই পারেনা ফুলঝুরির কষ্টটা কোথায় হচ্ছে। তিতির এর সঙ্গে লালন কে ভাগ করে নিতে পারছে না সে, লালন কে সেটা বোঝাতে পারছে না।

গতকালের পর্বে ধারাবাহিকে দেখানো হয় যে লালন আর ফুলঝুরির মধ্যে তিতির কে নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। ফুলঝুরি লালন কে স্পষ্ট জানিয়ে দেয় যে সে লালনের মুখে তিথিরের নাম আর শুনতে পারছে না। তিতিরের প্রতি যে লালনের একটা দুর্বলতা তৈরি হয়েছে সেটা স্পষ্ট বুঝতে পারছে। তাই সে লালন কে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে লালন কে যে কোন একটা দিক বেছে নিতে হবে। কারণ ফুলঝুরি এভাবে নিজের স্বামীকে কারো সঙ্গে ভাগ করে নিতে পারবে না।

আসলে বাস্তবে এমনটাই হয়, অন্যান্য ধারাবাহিকে যেমন নায়িকার স্বার্থ ত্যাগ দেখানো হয় বাস্তবে কিন্তু একেবারেই তেমনটা হয় না। নিজের স্বামীকে কেউই অন্য এক নারীর সঙ্গে ভাগ করে নিতে পারে না। ধুলোকণা ধারাবাহিক ও এবার সেই বাস্তবের দিকে এগোচ্ছে।

Back to top button