বাংলা সিরিয়াল

‘সমুদ্রে ডুবে যাওয়ার পর থেকেই হাসপাতালে ভর্তি ছিল! জ্ঞান ফিরতেই একমুখ চুল দাড়ি কী করে উধাও হলো লালনের?’ধুলোকণায় লালন কে নিয়ে তৈরি হল মিম!

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ধুলোকণা। এই ধারাবাহিকে সাম্প্রতিককালের যে ট্রাক এসেছে সেখানে দেখা যাচ্ছে যে, লালন মৃত ফুলঝুরি বিধবার বেশে ঘুরে বেড়াচ্ছে। অন্যদিকে লালন কে হত্যার দায়ে চান্দ্রেয়ী ও শ্রীরূপা জেল খাটছে।ধুলোকণাতে দেখা গিয়েছিলো যখন লালন সমুদ্রে ডুবে গিয়েছিলো তখন তার চুল এবং দাড়ি অনেক বড় বড় ছিলো। এরপর চান্দ্রেয়ী ও শ্রীরূপার ষড়যন্ত্রের শিকার হয় লালন, সবাই জানে সে মৃত কিন্তু আসলে সে নিখোঁজ হয়ে যায়। এরপর সে একটি হাসপাতালে অনেক দিন ভর্তি ছিলো, জ্ঞান ফিরলে দেখা যায় তার স্মৃতিশক্তি সব হারিয়ে গেছে, ডাক্তারবাবু তাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসেন এবং ডাক্তারবাবুর স্ত্রী তাকে নিজের ছেলে গোগোল ভেবে তার মত সাজিয়ে দেয়।

অন্যদিকে শ্বশুরবাড়ির লোক লালন মারা যাওয়ার পরে গায়িকার পেশায় থাকতে দেবে না ফুলঝুরিকে, তাই ফুলঝুড়ি বাধ্য হয়েছে আয়ার কাজ নিতে ওই ডাক্তারবাবুর আন্ডারেই সে কাজ করছে। লালন কে প্রথম দিন দেখে এসে চমকে যায় কিন্তু লালনের এই রূপ দেখে চমকে যায় দর্শকরা।

সবার বক্তব্য লালন যখন জলে ডুবে যায় তখন থেকে আজ অবধি তার জ্ঞান ছিল না, তাহলে জ্ঞান ফেরার সাথে সাথেই তার চুল দাড়ি কাটল কীভাবে?

তবে একজন এই কথার প্রতিবাদ করে লিখেছেন আপনি সিরিয়াল ভালো করে দেখুন তাহলেই বুঝতে পারবেন। ডাক্তারবাবু স্ত্রী হয়তো লালনকে গোগোলের মতো করে সাজিয়ে দিয়েছে।

অন্যদিকে আর একজন লিখছেন,“এটা কোন মিম হইলো আগে আম্রে বুঝান। কমনসেন্স খাটান এমনে বুঝে যাবেন। কোমা থেকে জ্ঞান ফেরার পর বাড়িতে নিয়ে গেছে। সেখানে কয়েকদিন থেকেছে। তারপর লালনকে দেখিয়েছে। এই কয়েকদিনের ভিতরে পরিপাটি হয়েছে।
ফালতু মিম”

Back to top button