বাংলা সিরিয়াল

পঞ্চমী ইচ্ছাধারী নাগিন দেখে ভয় পেয়ে যায়! সে বুঝতে পারে না কে আসল মানুষ আর কে সাপ মানুষ কীভাবে ঘুচবে পঞ্চমীর ধর্ম সংকট?

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক পঞ্চমী। এই ধারাবাহিকে দেখা যায় যে পঞ্চমী হলো ইচ্ছাধারী নাগিন,তবে পঞ্চমী নিজের পরিচয় নিজেই জানে না কারণ তার মায়ের মৃত্যুর পর সে বড় হয়েছে মন্দিরের পুরোহিত এবং তার স্ত্রীর কাছে আর পঞ্চমীর মা পঞ্চমীর জন্ম দেওয়ার পরেই মারা গেছে,তাই নিজের পরিচয় পঞ্চমী এখনো পায় নি।

ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে যে পঞ্চমীর মায়ের খুনের পিছনে যার হাত আছে তার গলাতে থাকবে শঙ্খের একটি মালা আর ঘটনাচক্রে কিঞ্জল সেই রকমই একটি মালা পড়ে থাকে। তাই নাগমাতারা সবাই ভাবে পঞ্চমীর মায়ের খুনি কিঞ্জল,তাই তারা এই খুনের প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য কিঞ্জলের কাছে ছুটে যায়।

অন্যদিকে পঞ্চমী সাপেদের ফিসফিস কথা শুনতে পেরে কাউকে সাপে কাটতে এলে তাকে বাঁচাতে যায়। সাপেরাও পঞ্চমীর কথা শুনে মানুষটিকে না কেটে ঘুরে চলে আসে। পঞ্চমীর এই গুণের কারণে কিঞ্জলের মা চায় তাদের সাথে পঞ্চমী যাক কারণ যেহেতু কিঞ্জলের সাপে ফারা আছে।

অন্যদিকে পঞ্চমীর পালিত মা তার বিয়ে না হলে তাকে গ্রাম থেকে কোথাও যেতে দিতে চায় না, সেই সময় পঞ্চমীর জীবন বাঁচাতে লাল রঙ মাথায় দিয়ে দেয় কিঞ্জল। এরপর কিঞ্জলের বাড়িতে এসে পঞ্চমী দু দুবার কিঞ্জল কে বাঁচায় সাপে কাটার হাত থেকে। এই সময় নাগ মাতা পঞ্চমীর কাছে এসে বলে , পঞ্চমী এই হার যার সে তোর মায়ের খুনি। কিন্তু পঞ্চমী এই সমস্ত কথা শুনতে পায় না, সে শুধু দেখে একজন সাপ মানুষ হয়ে গেলো। পঞ্চমী এইবার ধর্ম সংকটে পড়ে যায় সে কি করে বুঝবে কে সাপ আর কে সাপ থেকে হয়ে ওঠা মানুষ?

Back to top button