বাংলা সিরিয়াল

বাবা মায়ের ঋণ কখনো শোধ করা যায় না’ কনকাঞ্জলি দিতে অস্বীকার করায় পর্নার প্রশংসায় পঞ্চমুখ নেটিজেনরা!

কিছু কিছু জিনিস সময়ের সাথে সাথে বদল হওয়া উচিত কিন্তু পুরনো দিনের ধ্যান ধারণার কিছু মানুষ পুরনো সমস্ত রীতি রেওয়াজকে আগলে বসে থাকেন, তারা নতুন কিছুকে একসেপ্ট করতে বা গ্রহণ করতে পারেন না। সেই জায়গাতেই শুরু হয় দন্ড নতুন এবং পুরাতনের দ্বন্দ্ব। এই জায়গাটায় সম্প্রতি প্রকাশ পেয়েছে জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক নিম ফুলের মধুতে।

অভিনেতা রুবেল দাস ও অভিনেত্রী পল্লবী শর্মা নতুন জুটি ধারাবাহিকদের মন কেড়ে নিয়েছে অল্প দিনের মধ্যেই। সৃজন পর্না হিসেবে তারা সকলের মন জয় করে নিয়েছেন। এই ধারাবাহিকের কিছু নিয়ম কানুন ও দর্শকের মন জয় করে নিয়েছে। অন্যান্য ধারাবাহিকে যেখানে বিয়ে নিয়ে নানান রকম গন্ডগোল সমস্যা ইত্যাদি দেখানো হয় সেখানে নিম ফুলের মধুতে দেখা যাচ্ছে যে, লাভ নয়, অ্যরেঞ্জ করে বিয়ে হচ্ছে নায়ক-নায়িকার।

বিয়ের আইবুড়ো ভাত, গায়ে হলুদ থেকে শুরু করে নান্নিমুখ, মালাবদল, সিঁদুর দান সবই এক এক করে হচ্ছে। এত সুন্দর এবং নিখুঁতভাবে বিয়ের রিচুয়াল্স গুলো পালন হচ্ছে দেখে সবাই এই ধারাবাহিকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হচ্ছেন। এর পাশাপাশি এই ধারাবাহিকের আরো একটি জিনিস প্রশংসিত হয়েছে তা হলো কনকাঞ্জলি নিয়ে পর্নার মনোভাব।

পর্না কনকাঞ্জলি দিতে অস্বীকার করে কারণ সে জানায় বাবা-মার ঋণ কখনোই শোধ করা যায় না। তার শ্বশুর বাড়ির লোক তাকে এই নিয়ে তাকে অনেক কথা শোনালেও নিজের সিদ্ধান্তে সে অটল ছিল, তার এই দৃঢ় চেতা মনোভাব দর্শকের মন জয় করে নিয়েছে। তার সাথে প্রচুর মানুষ এটি স্বীকারও করেছেন যে এই রকম প্রথা সমাজ থেকে যত দ্রুত মুছে যায় ততই ভালো, কারণ একজন ছেলের কাছে তার বাবা মা যেমন একজন মেয়ের কাছে তার বাবা-মাও তাই। ‌

Back to top button