বাংলা সিরিয়াল

সুদীপার রান্নাঘর নিয়ে এলো বড়সড়ো আপডেট! টিআরপি না থাকায় তবে কি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে সুদীপার রান্নাঘর? চলুন দেখেনি

জি বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় ননফিকশন শো হলো সুদীপার “রান্নাঘর”। এই নন ফিকশন শো পায়ে পায়ে পূর্ণ করল ৫০০০ পর্ব। নিঃসন্দেহে বাংলা টেলিভিশনের ইতিহাসের দীর্ঘতম কুকিং শো এটি। এর আগে কোন নন ফিকশন শোকে এতদিন ধরে টেলিকাস্ট করা হয়নি। একটি নন ফিকশন শো এতদিন চলার পেছনে অবধারিতভাবে রয়েছে টিমের নিরলস পরিশ্রম।

এছাড়াও রান্নাঘরের সবথেকে আকর্ষণীয় ব্যক্তি হলেন সঞ্চালিকা সুদীপা চট্টোপাধ্যায়। সঞ্চালিকা অনবদ্য সঞ্চালনা মানুষের মনের কাছের শো করে তুলেছিল “রান্নাঘর”কে। তবে বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে অভিনেত্রীর জনপ্রিয়তায় কিছুটা কালিমা লেগেছে। এখন অভিনেত্রী যাই পোস্ট করছেন কিংবা বলছেন সবেতেই কটাক্ষ আসছে। এই ঘটনা শুরু হয় ডেলিভারি বয় কে নিয়ে সুদীপার করা একটি আলটোপকা মন্তব্যের জেরে। যার ফল সঞ্চালিকাকে ভুগতে হচ্ছে এখনো।

এরপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর যেকোনো মন্তব্যেই আসছে কটাক্ষের ঝড়। টিভির পর্দার সঞ্চালিকা সোশ্যাল মিডিয়াতে এই ধরনের আলটপকা অহংকারী মন্তব্য করবেন সেটা কেউ ভাবতেও পারেনি। কিন্তু এর জন্য সঞ্চালিকাকে নেটিজেনরা সহ তাঁর ইন্ডাস্ট্রির লোকেরাই যা যা বলেছেন তাতেই তাঁর শিক্ষা হয়ে যাওয়া উচিত ছিল। কিন্তু তারপরেও থেমে থাকেননি সঞ্চালিকা। বিভিন্ন সময় নিজের বিভিন্ন প্রশ্নের মাধ্যমে বুঝিয়ে দিয়েছেন তাঁর অহংকারী ভাব। তাই এখন দর্শকের রোষানল তাঁর উপর থেকে যাচ্ছে না কোনোভাবেই।

কিন্তু এবার শোনা যাচ্ছে তাঁর সঞ্চালিত শো “রান্নাঘর” কিছুটা সমস্যায় পড়েছে। আমরা সকলেই জানি প্রত্যেক সপ্তাহতেই “রান্নাঘর” নিজের টিআরপি রেটিং একেবারেই হারিয়ে ফেলছে। স্লটলিড করা তো দূরের কথা নিজের টিআরপি ধরে রাখতেই সক্ষম হচ্ছে না এই শো। তবে সেটা কি সঞ্চালিকার প্রতি দর্শকদের রোশানালের কারণে কিনা তা বলা যাচ্ছে না। তাই এবার সোশ্যাল মিডিয়াতে শোনা গেল এই বিষয়ে কিছু তথ্য।

দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে বিকেল বেলায় এই শুরু হলেই বাড়ির গৃহিণীরা ব্যস্ত থাকতেন এই শো দেখতে। এবার বিগত ২০০৫ সালে প্রথম সম্প্রচারিত হওয়া। এই সময়ের টাইমিং নিয়ে কিছু তথ্য জানতে পারা গেল। এই শো যখন শুরু হয় তখন এই শো জি বাংলার পর্দায় সম্প্রচারিত হতো বিকেল ৫টায়। কিন্তু এরপরেই যখন জি বাংলার আরও একটি শো “দিদি নাম্বার ওয়ান” “বধূবরণ” সিরিয়ালের কাছে সন্ধ্যে ৬টার স্লট হারিয়ে ফেলে তখন “রান্নাঘর”কে দিয়ে দেওয়া হয় বিকেল ৪:৩০ তে। যদিও এসবের ফলে শো এর জনপ্রিয়তাতে কোনো প্রভাব পড়েনি।

এরপরে আবার “দিদি নাম্বার ওয়ান” আরো একটি ধারাবাহিক “ইচ্ছে নদী”র কাছে বিকেল ৫:৩০টার স্লট হারায়। তখন আবার “রান্নাঘর” ৪:৩০ এর বদলে বিকেল ৪ টের সময় সম্প্রচারিত হয়। এরপরে অন্যান্য আরো ধারাবাহিক আসলেও জি বাংলা ৪:৩০ তেই সম্প্রচার শুরু করে রান্নাঘরের। তবে এবার শোনা যাচ্ছে যে রান্নাঘরের স্লট আবার পরিবর্তন হতে পারে। আর এবার সোজা বিকেল থেকে পরিবর্তন হয়ে দুপুরে সম্প্রচার করা হবে “রান্নাঘর”। দুপুর ১২ টা, দুপুর ২টো কিংবা বিকেল ৪টের স্লটে দেখা যেতে পারে সুদীপার “রান্নাঘর”কে।

Back to top button