বাংলা সিরিয়াল

‘লালন করলে পরকীয়া আর মিঠাইতে সিদ্ধার্থ করলে কিছুই নয়!’-লালনের চরিত্র খারাপ বলায় একদল দর্শক রীতিমতো ক্ষিপ্ত হয়ে মুখ খুললেন!

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো ধুলোকণা। বেশ কয়েকদিন ধরে এই ধারাবাহিক নিয়ে দর্শকদের মধ্যে একটা উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। লালনের চরিত্র টি নিয়ে অনেক মানুষই বেশ দ্বন্দ্বের মধ্যে পড়ে গিয়েছেন।‌ কারণ স্মৃতি ফিরে আসার পরও লালন যেভাবে তিতির তিতির করছে সেটা ভীষণ বিরক্তিকর এবং অযৌক্তিক। তবে কিছু মানুষ মনে করছেন এর মধ্যে যুক্তি আছে। তাদের বক্তব্য, এর পিছনে নিশ্চয়ই কিছু সাইকোলজিক্যাল ব্যাপার আছে। আবার একদল মানুষ এই বিষয়টির তীব্র সমালোচনা করে বলছেন, ধুলোকণায় সরাসরি পরকীয়াকে প্রমোট করা হচ্ছে তাই এই ধারাবাহিক যারা দেখছেন তাদের রুচি নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়।

এই বিষয় নিয়ে সম্প্রতি একজন ধুলোকণা ফ্যান মুখ খোলেন এবং তিনি বলেন,“ কিছু মানুষের বক্তব্য এখন যারা ধুলোকণা দেখে তাদের নাকি রুচি খারাপ কিন্তু তারা ভুলে গেছে সেই দর্শকরাই কিন্তু মিঠাই দেখতো তাহলে কি মিঠাই তখন খারাপ হতো বলে দেখতো এখন ভালো হয় তাই দেখে না !!”

আবার সাম্প্রতিক কালের প্রোমো তে যেখানে লালন ফুলঝুরির ডিভোর্স দেখাচ্ছে তা নিয়েও প্রশ্ন তুলে একদল বলছেন,“ ধূলোকণায় নায়ক-নায়িকার বনিবনা হচ্ছেনা বলে নিজেরা নিজেরা আলাদা থাকার ডিসিশন নিয়েছে।এটা তারা করতেই পারে।ডিভোর্স যে হবে সেটাও ক্লিয়ার না।অবাক হলাম তিতিরের আগমণ দেখে।সে পেপারে করে এমন কিছু এনেছে যেটা দেখে মনে হলনা তিতির জোর জবরদস্তি করে কারো সংসার ভাঙছে।বরং আমরা দেখেছিলাম তিতির কত ভালে করে দুজনের মিল করিয়েছিল।

কিন্তু যারা এটা নিয়ে ট্রল করছে তারা হয়তো ভুলে গেছে তাদের সিরিয়ালেও বিচ্ছেদের ট্র্যাক এসেছিল।একজন থার্ড পার্সোন মরিয়া হয়ে উঠেছিল সংসার ভাঙার জন্য।নিজ হাতে পেপারও এনেছে আর সিডকে বলছে তুই সাইন করবি কিনা?
অন্যদিকে বিবাহিত এক্স জাস্টফ্রেন্ড এর বউকে নাকি কিসব ছবি পাঠিয়েছিল,রেস্টুরেন্টে সিডকে হাগ করিয়ে দেখিয়েছিলো আরও অনেক আপত্তিকর কথা বলেছিল।সেগুলো খুব রুচিসম্মত লেগেছিল তাদের।আসলে যাদের রুচি যেমন।
এটার পরই মনে হয় ডিভোর্সের পর ফুলসজ্জা নামের রুচিশীল ট্যাগলাইন দিয়ে প্রমোটও করেছিল।

মানে এসব নোংরামি জিনিস দেখে যারা অভ্যস্ত তাদের তো ভালো,পরিমিত,নরমাল জিনিস দেখে চুলকানি উঠবেই স্বাভাবিক।তারউপর একইদিনে সন্ধ্যায়…থাক না বলি। ওদের জ্বলবে তাতেই চলবে আমাদের।”

Back to top button