বাংলা সিরিয়াল

এতটা হিংসুটে কৃষ্ণা? নিজের হাতে সৃজনকে গুছিয়ে খেতে দিচ্ছে পর্না, তাতেও অসুবিধা তার!কথা শোনাতে ছাড়ছে না ছেলের বউকে, বারান্দায় মুখ ফুলিয়ে দাঁড়িয়ে ভাবছে বাবু বেহাত হয়ে যাচ্ছে

বেশ কিছুদিন হল জি বাংলায়(Zee Bangla) শুরু হয়েছে নিম ফুলের মধু(Nim Phuler Modhu)। শুরু থেকে যারা এই ধারাবাহিকের(Serial) নিয়মিত দর্শক তারা জানেন পর্না এবং সৃজনের নতুন সম্পর্কের মাঝে বারবার এসে উপস্থিত হয়েছে সৃজনের মা কৃষ্ণা। ধারাবাহিকের গল্প অনুযায়ী সৃজন অত্যন্ত প্রাচীন পন্থী সেকেলে বাড়ির ছেলে। অন্যদিকে পর্না আধুনিক পরিবার থেকে আসা মেয়ে।

তাদের সম্বন্ধ করে বিয়ে হলেও সৃজনের মা শুরু থেকেই পর্ণাকে মেনে নিতে পারেনা। তার একটাই চিন্তা আধুনিক বাড়ির মেয়ে এসে তার ছেলেকে তার থেকে কেড়ে নেবে। যে কারণে শুরু থেকেই তাকে বিভিন্ন খোঁটা দেওয়া, কথা শোনাতে থাকেন তিনি।

অন্যদিকে হাজার অপমান সহ্য করেও পর্না নিজের মতো করে সংসার গুছিয়ে নিতে চায়। আদর্শ বউ হয়ে ওঠার চেষ্টা করতে থাকে। সৃজনের মায়ের তাতেও সমস্যা। সম্প্রতি ধারাবাহিকের একটি পর্বে দেখা গিয়েছে পর্না একা হাতে সৃজন, নিজের শ্বশুর এবং দাদাকে খেতে দিচ্ছে। কারণ তারা অফিস বেরোবে। এতেও পর্নার ক্ষুত ধরেছে কৃষ্ণা। বারান্দার উপর দাঁড়িয়ে মনে মনে বলছে সে মেনে নিতে পারছে না তার ‘বাবু’ অফিস বের হওয়ার আগে তার মায়ের হাতে না খেয়ে অন্য কোন মেয়ের হাতে ভাত খাবে। আর সেই অন্য কোন মেয়ে তার বউ।

ছেলে বেহাত হয়ে যাচ্ছে এই ভেবে মা মঙ্গলচন্ডীর কাছে মানত করতে থাকে সে। এবং পর্না যখন যাবতীয় দায়িত্ব ভালোভাবে পালন করে সৃজনকে অফিস পাঠানোর জন্য টিফিন ব্যাগে পুরে দিতে আসে। তখন নতুন বউকে ঠেস মেরে ছেলেকে শুনিয়ে বলে পর্না তো সব নিজের হাতে গুছিয়ে দিয়েছে নিশ্চয়ই ভালো করেছে।

এতেই রেগে গেছেন দর্শকেরা। কৃষ্ণা তাহলে চাই সেটা কি। এতই যখন সমস্যা তখন ছেলের বিয়ে দিয়েছিল কেন। এমন মন্তব্য উঠে এসেছে। কেউ কেউ তাকে মানসিক রোগী পর্যন্ত বলেছে।

Back to top button