বাংলা সিরিয়াল

সুস্থ বিয়ে দেখলে ধারাবাহিক চলবে না! খেলনা বাড়ির বিয়ের প্রোমো দেখে ছেলেখেলা, পাগলের মেলা বলে কটাক্ষ করছেন দর্শকরা

একটা সময় মানুষ সিরিয়াল দেখার থেকে আড্ডা দিতে বেশী পছন্দ করতেন। সেই সময় মানুষ খেলাধুলো করতেন, বাড়ির বাইরে বেরোতেন, অবসর সময়ে বই পড়তেন, চ্যানেল বলতে বড় জোর ছিল ডিডি বাংলা আর ইটিভি বাংলা। পরবর্তীতে মানুষ বই পড়ার প্রতি আগ্রহ ধীরে ধীরে হারিয়ে ফেললেন, মানুষে মানুষে জনসংযোগ কমে গেল, কোন উৎসব-পার্বণ ছাড়া একজন অন্যজনের বাড়ি যেতে ভুলে গেলেন। তখন মানুষের ঘরে ঘরে এলো কালার টিভি,তাতে একাধিক চ্যানেল। এরপর মানুষের অবসর যাপন হতে শুরু করল টিভির সিরিয়াল দেখে।

টিভি যখন মানুষের অবসর যাপনের একমাত্র উপায় হয়ে উঠল তখন একটার পর একটা চ্যানেল সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকলো, প্রতিটি চ্যানেলেই সন্ধ্যা থেকে রাত অবধি একটার পর একটা সিরিয়াল চলছে। একটা সময় সিরিয়াল গুলোর মধ্যে ছিল যৌথ পরিবারের গল্প- বনেদিয়ানা গল্প, পারিবারিক সংকট থেকে মুক্তি হওয়ার গল্প, পরবর্তীতে এত চ্যানেল এত ধারাবাহিকের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা শুরু হয়ে গেলো যে, ধারাবাহিকের সহজ সরল সুস্থ কনসেপ্ট হারিয়ে গেলো। এখন গল্পের গরু গাছে উঠে গেছে। ধারাবাহিকে বিয়ে মানেই দেখা যায় উড়ন্ত সিঁদুর, উড়ন্ত মালা, বর বদল, কনে বদল ইত্যাদি বিষয়। সাম্প্রতিককালের ধারাবাহিক খেলনা বাড়িতেও তাই দেখা গেলো।

কৃষ্ণনগরের মাটির পুতুল বিক্রেতা মিতুলের গল্প নিয়ে শুরু হয়েছিল এই ধারাবাহিক খেলনা বাড়ি। ধারাবাহিকে দেখা যায় নায়িকা মিতুল অত্যন্ত গরীব পরিবারের মেয়ে সংসার চালাবার জন্য সে পুতুল বিক্রি করে অন্যদিকে সিরিয়ালের নায়ক ইন্দ্রজিৎ বড়লোক বাড়ির বদমেজাজী ছেলে। ধারাবাহিকের শুরু থেকেই এই ধারাবাহিক সেভাবে জনগণের মনোরঞ্জন করতে পারেনি। যেকোনো কারণেই হোক খেলনা বাড়ি প্রথম থেকে সেভাবে জনপ্রিয়তা পায়নি। এইবার দেখা যাচ্ছে দর্শককে সিরিয়াল মুখী করবার জন্য এই ধারাবাহিকেও বিয়ে নিয়ে রীতিমত একটা ধামাকা দার ব্যাপার দেখানো হয়েছে। ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে ইন্দ্রজিৎ আর মিতুল সাতপাকে ঘুরছে তাদের বিয়ে হচ্ছে। এমন সময় খবর আসে ছোট্ট গুগলি কিডন্যাপ হয়ে গেছে।

গুগলির কিডন্যাপ হওয়ার খবর পেয়ে বিয়ের মণ্ডপ ছেড়ে গুগলিকে বাঁচাতে ছোটে ইন্দ্রজিৎ। ইন্দ্রজিতের পেছনে পেছনে মিতুল‌ও বিয়ের মণ্ডপ ছেড়ে গুগলিকে বাঁচাতে ছুটে যায়। এই প্রোমো দেখার পর সবাই বলছেন, বিয়েটা যেন ছেলেখেলা। কেউ আবার সিরিয়ালটাকে পাগলের মেলা বলেছেন, কেউ আবার এই সিরিয়ালকে ফালতু বলে অবিলম্বে বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।

Back to top button