বাংলা সিরিয়াল

‘ঈশানকে যখন নীলকন্ঠ বানিয়েই দিয়েছেন তখন আর দেরি কেন? এবার গৌরীর গায়ের ময়লা থেকে গণেশের জন্ম দিয়ে দিন’-গৌরীর স্পর্শে নীলকন্ঠ ঈশানের জ্ঞান ফিরতে তুমুল ট্রোলড গৌরী এলো সিরিয়াল!

বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো গৌরী এলো। এই ধারাবাহিকে দেখানো হয়েছে যে গৌরী হলো মা দুর্গার অবতার আর ঈশান হলো দেবাদিদেব মহাদেবের অংশ। এখানেই শেষ নয় এই ধারাবাহিকে আরো দেখানো হয়েছে যে, গৌরী আর ঈশানের মধ্যে ঠাকুর দেবতার নানান রকম অলৌকিক কান্ড কারখানা ঘটানোর ক্ষমতা আছে।

যেমন মুক্তা দিদিকে বাঁচাতে গৌরী, মা কালীর মত খাড়া হাতে গুন্ডাদের পেছনে ছোট এরপর তাকে শান্ত করতে ঈশান মহাদেবের মতো তার পায়ে পড়ে যায় আর গৌরী জিভ বার করে ফেলে।

এরপর গৌরী আরো নানা সমস্যার সমাধান করে ফেলে, তার হাতের ফুটন্ত গরম জল ঠান্ডা হয়ে যায়। যে কোন অসুস্থ মানুষ সুস্থ হয়ে যায় এইসব দেখে তাকে গৌরী মা করে মন্দিরে প্রতিষ্ঠা করে ছোট দাদু তাকে দেবীত্বে উন্নীত করা হয় এবং সবাই তাকে দেখতে আসে এবং তার চোখের জল ও সংগ্রহ করতে চায় আশীর্বাদ হিসেবে।

এইসব দেখে ঈশান রীতিমতো রেগে যায় এবং সে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে চায়, এরপর দেখানো হয় যে শৈল মা গৌরীকে মারার চক্রান্ত করছে কারণ তার জায়গা চলে গিয়েছে গৌরীর কারণে। এইসব এপিসোড দেখে কিছু দর্শক এমনিতেই বিরক্ত হয়ে গিয়েছিল কারণ ঠাকুর দেবতা নিয়ে এইরকম মজা মস্করা অনেকেই পছন্দ করেননি।

সম্প্রতি যে এপিসোড দেখানো হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাও রীতিমতো ট্রেলিং এর শিকার হচ্ছে। এখন গৌরী এলো তো দেখানো হচ্ছে যে ঈশানকে সাপে কেটেছে এবং সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যায় এরপর গৌরী কাঁদতে শুরু করে এবং গৌরী স্পর্শ ঈশানের জ্ঞান ফেরে, মহাদেবের গলায় যেরকম ভাবে নীল বিষ ফুটে উঠেছিল সেই রকম ভাবে ঈশানের গলাতেও নীল ফুটে ওঠে।

পুরাণ মতে দেবী তারার স্পর্শে বিশেষ যন্ত্রণা থেকে মুক্তি লাভ করেছিলেন মহাদেব, এখানেও ঠিক তেমনটাই দেখানো হয় আর এই এপিসোড দেখে একজন নেটিজেন সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন যে, “ঈশান কে যখন নীলকন্ঠ বানিয়ে দিয়েছেন তখন গৌরীর গায়ের ময়লা থেকে এবার গণেশের ও জন্ম দিয়ে দিন”

Back to top button