বাংলা সিরিয়াল

মন্দির নয় শৈল মা’র আসল জায়গা জেল! হাতে হাতকড়ি পরার অপেক্ষায় দর্শক, প্রমো সামনে আসতেই মুহূর্তে ভাইরাল

বাঙালি বিনোদনের ডেলি ডোজ মানেই বাংলা ধারাবাহিক(Bengali Serial)। সারাদিনের ক্লান্তি ব্যস্ততাকে এক চুটকিতে ম্যাজিকের মত উড়িয়ে দিতে পারে এই বিনোদনমূলক সিরিয়ালগুলি। যদিও বিশ্বকাপের উত্তেজনা কিছুটা হলেও চাপ ফেলেছিল ধারাবাহিক গুলির ওপর। তবে এবার সামনে এল জি বাংলার অন্যতম ধারাবাহিক নতুন ঝলক। যে ঝলক দেখে অন্তত দর্শকদের চোখ কপালে উঠেছে।

টিভির পর্দায় দর্শকরা নতুন নতুন ধারাবাহিক দেখতে পান বটে তবে তাদের মধ্যে সবচেয়ে এগিয়ে থাকে ধর্মীয় বিষয়কেন্দ্রিক সিরিয়ালের চাহিদা। ঠিক যেমন বর্তমানে টিআরপি তালিকায় চোখ রাখলেই দেখা যায় গৌরী এলো (Gouri Elo)একেবারে টেক্কা দিচ্ছে ধারাবাহিকগুলির সঙ্গে। দর্শকমহলে এই সিরিয়ালের জনপ্রিয়তা নতুন করে বলার আর কিছুই নেই। মাঝে বেশ কয়েক সপ্তাহ তাক লাগিয়ে বেঙ্গল টপারের যদিও যাকে বসেছিল গৌরী। যদিও মাঝে কিছুদিন ট্রোলিংয়ের শিকার হতে হয়েছিল এই ধারাবাহিকে অবশেষে সামনে নতুন প্রমো আসতেই অনেকে মনে করছেন। এবার আরেকবার টিআরপির তালিকায় নিজের সেরার জায়গা ধরে রাখতে তৈরি গৌরী এলো(Gouri Elo) টিম।

দীর্ঘদিন ধরে সবার কাছ থেকে আসল সত্যি গোপন করে যে ভালো মানুষের মুখোশ পড়েছিলেন শৈল মা এবার তার মুখোশ টেনে খুলে দিতে বদ্ধপরিকর গৌরী এবং ঈশান। নতুন প্রমোতে তাই একেবারে পুলিশ নিয়ে সদল বলে হাজির দুজনে। রীতিমত প্রমাণ নিয়ে ঈশান দাবি করে মন্দির নয় এবার থেকে জেলই হবে শৈল মায়ের আসল ঠিকানা। ধারাবাহিকের মুখ্য চরিত্র গৌরিকে এবং তাকে ফুটন্ত করায় পুড়িয়ে মারার যাবতীয় প্রমাণ হাতে নিয়ে হাজির হয়েছে দুজনে।

যারা এই ধারাবাহিকের নিয়মিত দর্শক তারা জানেন ঈশান বিজ্ঞানমনস্ক একজন ব্যক্তি। পেশায় চিকিৎসক এবং গৌরী হরগৌরির এক মানব রূপ। যার ওপর স্বয়ং শিব পার্বতীর আশীর্বাদ রয়েছে। যদিও ঈশানের পরিবার মেনে নিয়েছে ঐশ্বরিক ক্ষমতায় রয়েছে। আর এই কথা জানার পর থেকেই তার প্রতিপক্ষ শৈল মা অবিরাম চেষ্টা করে গিয়েছে গৌরীর কোনরকম ক্ষতি করার। এমনকি নিজের পথের কাঁটা দূর করতে মৃত্যুর মুখে পর্যন্ত ঠেলে দিয়েছে গৌরীকে কোন কিছু না ভেবেই। অবশেষে শৈলমায়ের মুখোশ খুলতে এবং তার কর্মকাণ্ড পরিবারের সামনে তুলে ধরতে তৎপর দুজনে।

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে নতুন প্রমো নিয়ে বেশ রোলিং এর শিকার হয়েছিল গৌরী এলো ধারাবাহিক। সেখানে দেখা দিয়েছিল গৌরীর কথায় শ্যামচক জমিদার বাড়ি থেকে অভিশাপ কাটাতে মাটির তলা থেকে শিবলিঙ্গ তুলে আনছে ঈশান। তারপরেই পুকুরে ডুব দিয়ে মাথায় শিবলিঙ্গ নিয়ে আসছে সে। যা দেখে অনেকে ‘গরিবের বাহুবলী’ বলে ট্রোল করেছিল। কেউ কেউ স্পষ্ট দাবি করেছিলেন সাউথের জনপ্রিয় ছবি বাহুবলিকে হুবহু টুকে দিয়েছে।

Back to top button