বাংলা সিরিয়াল

সেপটিপিন বিশেষজ্ঞের পাল্লায় পড়েছে দ্যুতি! গাঁট ছড়ায় হানিমুনে গিয়ে দ্যুতির ব্লাউজের সেপটিপিন এঁটেছে দেখে ট্রোল শুরু হলো সোশ্যাল মিডিয়ায়!

এখন হানিমুন পর্ব চলছে গাঁটছড়াতে! যা দেখে দর্শকরা রীতিমতো উচ্ছ্বসিত হয়ে গিয়েছেন। কিছুদিন আগেই দেখা গিয়েছিল যে, হানিমুনে গিয়ে খড়িকে ফুল দিয়ে হাঁটু মুড়ে প্রপোজ করেছিলো ঋদ্ধি! খড়িকে সুযোগ দিতে বলেছিল তাকে ভালবাসতে দেওয়ার সুযোগ। অন্যদিকে খড়ি বলেছিল স্বামীর অধিকার নিয়ে নয় সাধারণ মানুষের মতো তার মন জয় করতে হবে তাকে।

সব মিলিয়ে বলা যায় দাদু ঠাকুমার প্ল্যান করে তিন নাতি নাত বুকে হানিমুনে পাঠানোর প্ল্যান আংশিক ভাবে সফল হয়েছে। আংশিক বলা হচ্ছে এই কারণেই যে হানিমুনে এসেছিল তিনটে জুটি। খড়ি ঋদ্ধি,বনি কুনাল, রাহুল দ্যুতি- এই তিন জুটির কেমিস্ট্রি তিন রকম ভাবে ধরা দিয়েছে ধারাবাহিকে। খড়ি ঋদ্ধির সম্পর্কের মধ্যে কার দূরত্ব যখন ক্রমশ কমছে দুজনের মধ্যেকার সম্পর্কের বরফ গলছে! খড়ি বুঝতে পারছে যে কেউ একজন আছে যে ঋদ্ধি আর তার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টি করবার চেষ্টা করছে, তখন‌ই বনি সেই মানুষটাকে ধরে ফেলেছে যে তাকে আর কুনালকে বাধ্য করেছিল বিয়ে করবার জন্য।

হানিমুনে এসে বউ থাকা সত্ত্বেও প্রেমিকার ঘরে ঢুকে পড়ে রাহুল আর নিজের স্বামীকে অন্যের ঘরে ঢুকতে দেখে রীতিমতো ভেঙে পড়ে দ্যুতি। বেঁচে থাকার ইচ্ছাটুকু শেষ হয়ে যায় তার সে কান্নায় ভেঙে পড়ে তার বোন খড়ির কাছে অন্যদিকে বনি আবার তার স্বামীকে সারপ্রাইজ দেওয়ার জন্য তার স্বামীর প্রেমিকাকে ডেকে আনে হানিমুনে। তবে এই সব কিছুর মধ্যে দর্শক এমন একটা জিনিস দেখেছেন যা দেখে তারা অবাক হয়ে গেছেন আর এই জিনিসটা নিয়ে ইতিমধ্যেই কিছু মানুষ ট্রোলিং শুরু করে দিয়েছেন। দ্যুতি যখন খড়িকে সমুদ্রের ধারে দাঁড়িয়ে তার নিজের কষ্টের কথা বলছে তখন দেখা যায় সে যে ব্লাউজ টা পড়ে আছে সেই ব্লাউজটা সেফটিপিন দিয়ে আটকানো। এটি দেখে একজন নেটিজেন সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন যে, “BIG BREAKING অবশেষে সেফটিপিন বিশেষজ্ঞ অ্যাক্রো কাকিমার খপ্পরে পড়েছে আমাদের দ্যুতিইই বেবিইইইই”

Back to top button