বাংলা সিরিয়াল

‘আমার ওয়াইফের গায়ে হাত দিলে হাত ভেঙে রেখে দেবো’ মদে চুর হয়ে বেসামাল হয়ে গেলেও স্ত্রীর অসম্মান সহ্য করল না ঋদ্ধি! নেটিজেনরা বলছেন ‘জাতে মাতাল তালে ঠিক’!

ভালোবাসা অত্যন্ত অদ্ভুত একটা জিনিস যা কোন নিয়ম মানে না। যা যাবতীয় সংজ্ঞার বাইরে। হয়তো এই কারণেই বলা হয় সখি ভালোবাসা কারে কয়? কারণ ভালোবাসা যে ঠিক কোথায় লুকিয়ে আছে আর কোথায় লুকিয়ে নেই তা বলা অসম্ভব। ঠিক যেমনটা দেখা যাচ্ছে গাঁটছড়া ধারাবাহিকে খড়ি ঋদ্ধির রসায়নে। স্ত্রীর প্রতি রাগ অভিমান যাই থাকুক না কেন, স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসা অটুট ঋদ্ধির।‌ সেই কারণে বেসামাল অবস্থাতেও স্ত্রীর সম্মান রক্ষা করেছে ঋদ্ধি।

সম্প্রতি এই ধারাবাহিকে দেখা যাচ্ছে যে ঋদ্ধির অনুপস্থিতিতে কুনালের সাথে বনির বিয়ে দেওয়ার কারণে খড়ির ওপর অত্যন্ত রেগে গিয়েছে ঋদ্ধি। সেই কারণে খড়িকে শাস্তি দেওয়ার জন্য একটি ডিস্কো বারে নিয়ে এসেছে সে। সেখানে ঋদ্ধি প্রচুর পরিমাণে মদ খাচ্ছে আর খড়ি কে বলছে আই হেট ইউ। আসলে ঋদ্ধিমান মনে করছে যে এই সম্পূর্ণ ঘটনাটা খড়ি ইচ্ছাকৃত প্ল্যান ফুলি ঘটিয়েছে। সে পরিকল্পনা করেই তার বাড়ির বোনকে আবার সিংহরায় বাড়ির বউ করেছে। তাই খড়ির ওপর রেগে এই সমস্ত কান্ড ঘটাচ্ছে সে।

সম্প্রতি আরও দেখা যায় যে ওই ডিস্কোতে ঋদ্ধি যখন মদ খেয়ে পুরো বেসামাল হয়ে গেছে তখন একজন ছেলে খড়ির সাথে অত্যন্ত অসভ্যতামো আচরণ করে। এটা দেখে বেসামাল অবস্থাতে উঠে পড়ে ঋদ্ধিমান ছেলেটিকে প্রচন্ড মারধর করে এবং বলে খড়ি তার ওয়াইফ খড়ির সাথে যেন সে আর কখনো এরকম অসভ্য আচরণ না করে তাহলে তার হাত ভেঙে দেবে সে। খড়ি তাকে আটকাতে এলে বুঝতে না পেরে খড়িকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় ঋদ্ধিমান এরপর খড়ির শাড়ি ঠিক করে দিয়ে খড়ি কে তুলে নিয়ে যায়। অর্থাৎ বেসামাল অবস্থাতেও স্ত্রীর সম্মান সে রক্ষা করে চলে। এপিসোড দেখে নেটিজেনরা বলছেন ঋদ্ধির অবস্থা ‘জাতে মাতাল তালে ঠিক’! বেসামাল হলেও অন্তরে বৌয়ের প্রতি ভালোবাসা ভরপুর!

Back to top button