বাংলা সিরিয়াল

বাংলার প্রথম ধারাবাহিক ‘জননী’র সুপ্রিয়া দেবী কে আজও ভুলতে পারেনি বাংলার মানুষ, এত বছর পর আবারও ফিরে দেখা সেই পুরোনো দিনগুলি

বর্তমানে বাংলা ধারাবাহিক গুলিতে এসেছে বিরাট পরিবর্তন। বর্তমানের ধারাবাহিক গুলিতে কূটকচালি, পরকীয়া ছাড়া আর কিছুই দেখা যায় না। কিন্তু আজ থেকে বেশ কয়েকবছর আগে ধারাবাহিক গুলি এক্কেবারে অন্যরকম ছিল। তখন সাধারণ মানুষের জীবন কাহিনী সাধারণভাবেই তুলে ধরা হতো। এখন সময় পাল্টেছে, যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ধারাবাহিকের গল্পে এসেছে পরিবর্তন। পুরনো দিনের মানুষরা জানবেন আগেকার ধারাবাহিক হইলে ঠিক কতটা সুন্দর ছিল।

যখন চারিপাশ এতটা জমজমাট ছিল না শহরতলী গুলি দুপুর পেরোতে না পেরোতেই শান্ত হয়ে যেত আর বাড়ির মা কাকিমারা দুপুরবেলায় সমস্ত কাজ সেরে টিভির পর্দায় বাংলা ছায়াছবি এবং ধারাবাহিক গুলি দেখতে বসে পড়তেন। আর সেই সময়ের জনপ্রিয় ধারাবাহিক গুলির মধ্যে অন্যতম একটি ছিল পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা ‘জননী’। রবীন গঙ্গোপাধ্যায়ের সুরে ইন্দ্রাণী সেনের গলায় গাওয়া একটি জিঙ্গেল বেজে উঠতো ‘হাসি মুখে যে সয় জগতের সেই জননী’।

এখনকার দিনে এখনকার মতো হাজারটা চ্যানেল ছিল না তখন ধারাবাহিক গুলি একটি ন্যাশনাল হিন্দি চ্যানেলে আসতো। বাংলা ধারাবাহিকের জগৎ তখন প্রায় শূন্য। ঠিক সেই সময় ১৯৯৫ সালে চ্যানেল এইট এর হাত ধরে শুরু হলো বাংলা মেগা ধারাবাহিক। সোম থেকে শুক্র দুপুর সাড় বারোটার স্লটে এল ‘জননী’। পরিচালনায় বিষ্ণু পালচৌধুরী৷ চিত্রনাট্যকার দুলেন্দ্র ভৌমিক৷ কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সুপ্রিয়া দেবী। টানা একবছর রমরমিয়ে চলেছিল এই ধারাবাহিক।

সেই সময় বাংলার মানুষের কাছে সুপ্রিয়া দেবী ছিল স্টাইল আইকন। বাঙালির সোফিয়া লোরেন। উপচে পড়া যৌবন এবং রূপের ছটা দিয়ে সকলকেই আকৃষ্ট করতেন তিনি। জননী মেগা ধারাবাহিক এর হাত ধরে নতুনভাবে বাঙালির কাছে ধরা দিয়েছিলেন অভিনেত্রী সেসময় লোকের মুখে মুখে ঘুরতে জননী ধারাবাহিকটি। সেই প্রথম টেলিভিশনের পর্দায় প্রবেশ ঘটলো বাংলা ধারাবাহিকের। তখন ধারাবাহিকে দর্শকদের নজর কাড়তে প্রয়োজন হয়নি বর্তমান সময়ের মতো এতো রং মাখানো গল্পের। এমনি এই ধারাবাহিক সাধারন মানুষের নজর কেড়েছিলেন এবং এখনও জননী ধারাবাহিকের জনপ্রিয়তা রয়েছে।

Back to top button