বাংলা সিরিয়াল

একাধিক ধারাবাহিকে নায়িকা হওয়ার অফার ছেড়ে ‘ধূলোকনা’ তে খলনায়িকার চরিত্র ‘চড়ুই’ করতে কেন রাজি হলেন শ্বেতা? মুখ খুললেন সুপারহিট অভিনেত্রী শ্বেতা মিশ্র

নায়িকা বা মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করতে সকলেই চান, কারণ এই চরিত্রের নির্মাণ এমন হয় যে দর্শকদের আগ্রহ‌ ও কৌতূহল, ভালোবাসা এবং সহমর্মিতা সব থাকে একজন নায়িকার প্রতি। তাই মুখ্য চরিত্রে কাজ করার প্রস্তাব পেলে বেশিরভাগজন‌ই লুফে নেন। বেশিরভাগ কথাটা বললাম কারণ সবাই নয়। ব্যতিক্রমী আছেন, যারা নায়িকা চরিত্র ছেড়ে খল নায়িকার চরিত্র বেছে নেন, টাইপকাস্ট হওয়ার ভয়‌ও যাদের মনের মধ্যে থাকে না, ছক ভেঙে নতুন কিছু করার আগ্রহ ‌ই হয় প্রবল। যেমন ধুলোকণার চড়ুই।

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ধুলোকণাতে খল চরিত্র চড়ুই, লালন ফুলঝুরির ভালোবাসার মধ্যে মূর্তিমান অভিশাপ সে। দর্শকরা তাকে দু’চোখে সহ্য করতে পারে না, কিন্তু চড়ুইয়ের চরিত্রাভিনেত্রী শ্বেতা মিশ্র যিনি কিনা বড় পর্দার নায়িকা তিনি অনায়াসে বেছে নিলেন ছোটপর্দার খল চরিত্র! হ্যাঁ প্রথম সারির প্রযোজনা সংস্থার মাধ্যমে ‘প্রেম-টেম’ ছবিতে আরশি চরিত্রে অভিনয় করে সকলের মন জিতে নেন অভিনেত্রী। বড় পর্দার সেই নায়িকাই কিনা ছোটপর্দায় খল! অভিনেত্রী জানান তার চরিত্র সফল হয়েছে, এতেই তার খুশি।

শ্বেতার কথায়,“আমার এক সহঅভিনেতাকে একজন জানিয়েছিলেন আমাকে দেখে নাকি তার স্ত্রী উত্তেজিত হয়ে পড়েন। সেই মহিলা হাইপারটেনশনের রোগী। পর্দায় চড়ুইকে দেখতে গেলে তাকে স্ট্রেস বল হাতে রাখতে হয়।” এর থেকে বড় পুরস্কার অভিনেত্রীর জীবনে আর কি হতে পারে! নিজের চরিত্রকে ফুটিয়ে তুলতে তিনি সফল। তবে চরিত্র সফল হলেও চড়ুইকে খল বলতে রাজি নন তিনি তাঁর মতে এটি একটি ধূসর চরিত্র। শ্বেতার কথায়,“চড়ুইকে আমি খলনায়িকা বলতে পারবোনা। কারন মানুষ হিসেবেও পুরোপুরি খারাপ নয়। ও যাকে ভালবাসে তাকে নিয়েই থাকতে চেয়েছে। তার বাইরে কিন্তু কিছু করেনি।”

অভিনেত্রী আরও বলেন যে,“ আমার কাছে মুখ্য চরিত্রের প্রচুর প্রস্তাব ছিল কিন্তু কোনোটাতেই রাজি হয়নি। আমি সময় নিয়েছি। অন্যরকমের চরিত্র করতে চাইছিলাম। খুব ভেবে চিন্তে তাই চড়ুইয়ের চরিত্রে অভিনয় করতে রাজি হয়েছি। মনে হয় না খুব ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছি।” কিন্তু প্রথম ছবির পরেই এরকম একটি নেগেটিভ চরিত্রে অভিনয়! টাইপ কাস্ট হয়ে যাওয়ার ভয় হয়নি? অভিনেত্রীর সপাট উত্তর,“একজন ভালো অভিনেতা সব ধরনের চরিত্রেই অভিনয় করতে পারেন। সুতরাং একই ধরনের চরিত্রের প্রস্তাবে এলেও তার উর্ধ্বে গিয়ে ভালো কাজ করা অসম্ভব নয়।”

ধুলোকনা প্রেম-টেম এই দুইয়ের মধ্যে কোনটা তাকে বেশি পরিচিতি দিয়েছে এই প্রশ্ন উঠলে অভিনেত্রী বলেন, “এত সহজে এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়া সম্ভব নয়। কারণ প্রেম-টেম আমার প্রথম ছবি। সেখানে বাইরে বাইরে শুট করেছি। অনেক কিছু শিখেছি কিন্তু ধুলোকণা আমাকে পরিচিতি দিয়েছে। শহরের বাইরের মানুষদের কাছেও আমি পৌঁছে গিয়েছি। তারা আমাকে চেনেন। ভালোবাসেন। এর থেকে বড় প্রাপ্তি আর কী‌ই বা হতে পারে।”

তবে বড় পর্দা ছেড়ে আচমকা ছোট পর্দা! এই নিয়ে কী বলবেন অভিনেত্রী? অভিনেত্রী বললেন, “ধারাবাহিক করলে ছবি করব না বা ছবি করলে ছোটপর্দায় আসবো না এমন চিন্তা ভাবনা আমার নয়। আমি খুব লোভী। সব ধরনের কাজ করতে চাই।” অর্থাৎ তিনি জানিয়ে দিলেন সব ধরনের কাজ করতে চান তিনি, কাজের ক্ষেত্রে কোন ছোট বড় ভেদ নেই তার কাছে, কী কাজ করছেন সেটাই বড় কথা!

Back to top button