বাংলা সিরিয়াল

‘দূরদর্শনের পুরনো মহালয়ায় ভালো ছিলো এখনকার মহালয়া দেখলে হাসি পায়’গান গাইতে গাইতে নাচ করতে করতে বগলামুখী দেবী অসুরকে খুঁজছেন দেখে বিরক্ত দর্শকরা বললেন

মহালয়া মানেই বাঙালির আবেগ, বাঙালির নস্টালজিয়া। মহালয়া মানে দেবীর আসার আর হাতে গোনা দিন। মহালয়ার সাথে মানুষের আবেগ এমন ভাবে জড়িয়ে থাকে যে আমরা মহালয়াতে একটু পান থেকে চুন খসলে রেগে যায়। বর্তমানে যে মহালয়া আমরা টিভিতে দেখি আগেকার মহালয়ার সাথে তা আকাশ পাতাল তফাৎ।

একটা সময় মহালয়াতে দেবী দুর্গার মহিষাসুরমর্দিনী রূপের কথায় শুধু বলা হতো এবং এই পুরো মহালয়া টি কথায় কখনো যুদ্ধ করে দেখানো হতো। কিন্তু বর্তমানে মহালয়াতে অনেক পরিবর্তন হয়েছে এখানে দেখানো হয় দেব দেবীরা নাচ করছেন। যে বিষয়টা যুগ পরিবর্তন হলে আজও দর্শক মেনে নিতে পারেন নি। মহালয়াতে দেবী মহিষাসুরমর্দিনীর গল্প এর অতিরিক্ত অন্য কিছু দেখলে দেবীর অন্য কোন আখ্যান শুনলে তারা যেমন বিরক্ত হন তেমনি মহালয়াতে দেবী দুর্গাকে অথবা অন্য কোন দেবীকে হাতে অস্ত্র নিয়ে নাচতে দেখলেও তারা বিরক্ত হন। সাম্প্রতিককালে মহালয়ার প্রোমো ভিডিওগুলিই তার প্রমাণ।

আগামী ২৫ শে সেপ্টেম্বর মহালয়া বিভিন্ন চ্যানেলে দেবী দুর্গার রূপে বিভিন্ন অভিনেত্রীকে কাস্টিং করা হয়েছে। জি বাংলায় শুভশ্রী গাঙ্গুলী, স্টার জলসায় সোনামণি সাহা আর কালার্স বাংলায় ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকে দেবী দুর্গার রূপে দেখা যাবে। এগুলি তো মূল দুর্গার রূপ এছাড়াও দেবী দুর্গার একাধিক রূপে একাধিক অভিনেত্রীদের দেখা যাবে বিভিন্ন চ্যানেল গুলিতে।

দশমহাবিদ্যার অষ্টম রূপ হলেন দেবী বগলামুখী। কালার্স বাংলা তে সাম্প্রতিক কালের প্রোমো তে দেখানো হয়েছে বগলামুখী সেজেছেন কালার্স বাংলার এক অভিনেত্রী তারপরে তিনি মদনাসুরকে খুঁজছেন। কিন্তু এই পুরো ভিডিওটিতে দেখানো হচ্ছে যুদ্ধের ভঙ্গিমা নয়, নাচের ভঙ্গিমায় গান নাচ করতে করতে তিনি অসুরকে খুঁজছেন।

কালার্স বাংলা এই প্রোমো দেখে নেটিজেনরা বিরক্ত হয়ে গিয়েছেন। একজন নেটিজেন তো আবার পরিষ্কার লিখেই দিয়েছেন,“দূরদর্শন এ পুরোনো মহালয়াটাই ভালো ছিল, এখন যেন কেমন হাসি পায় দেখলে”

Back to top button