বাংলা সিরিয়াল

দুইবার বিয়ে করা লালন অনুজ দুজনে বিশাল মনের অধিকারী, তাই কোন মেয়েকেই ফেরাতে পারে না বলছেন নেটিজেনরা!

স্টার জলসার জনপ্রিয় দুই ধারাবাহিক ‘গুড্ডি’ এবং ‘ধূলোকণা’। এই দুই ধারাবাহিক নিয়ে বর্তমানে রীতিমতো আলোচনা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কারণ এই দুই ধারাবাহিকের দুই নায়ক চরিত্রের মধ্যে একটি জিনিস লক্ষ্য করা যাচ্ছে আর তার নিয়েই রীতিমতো চর্চা হচ্ছে।

গুড্ডি ধারাবাহিকের নায়ক অনুজ প্রথম গুড্ডি কে বিয়ে করে কিন্তু তখন সে গুড্ডাকে ভালবাসতে পারে নি, তখন প্রাক্তন প্রেমিকা শিরিনের প্রতি দুর্বল হয়ে পড়েছিলো সে।

এরপর গুড্ডির সাথে ডিভোর্স হয় অনুজের আর শিরিন কে বিয়ে করে সে। এই সময় তার মনে গুড্ডির প্রতি ভালোবাসা দেখানো হয়। শিরিনের সাথে বিয়ে করার পরেও তার প্রথম স্ত্রী গুড্ডি’র প্রতি দুর্বল হয়ে তার সাথে রাত কাটাচ্ছে।

অন্য দিকে একই অবস্থা হয়েছে ধুলোকণার নায়ক লালনের। স্মৃতি হারিয়ে গিয়ে সে তিতিরদের বাড়িতে থাকতো সেই সময় তিতিরের সাথে তার বিয়ের কথাবার্তা হয়। এবার স্মৃতি ফিরে আসার পরে সে জানায় যে সে ফুলঝুড়ির কাছে ফিরে আসতে চায় কারণ স্মৃতিভ্রষ্ট হওয়ার পর সে কোন কিছু করলেও তার দায় সে নিতে চায় না।

এরপর সে ফুলঝুরির কাছে ফিরে আসে কিন্তু তারপর দেখা যায় তার মনের মধ্যে কোথাও একটা তিতির রয়ে গেছে। তাই বারবার সে তিতিরের বাড়ি যায় এবং তিতির কে তার কাছে থাকতে অনুরোধ করে।

মোট কথা এইভাবে এই দুটি ধারাবাহিকেই পরকীয়াকে প্রমোট করা হচ্ছে। স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও অন্য একজন নারীর সাথে স্বামীর সম্পর্ককে প্রমোট করা হচ্ছে। তাই দর্শকরা এই জিনিসটা নিয়ে রীতিমতো কথাবার্তা বলতে থাকেন। আবার হিসেব করে দেখতে গেলে দুজনেই ২ বার করে বিয়ে করেছে লালন আবার প্রথমে বিয়ে করেছিল চড়ুইকে।

দুটি ধারাবাহিকে দুই নায়ক চরিত্র কে এমন ভাবে দেখানো হয়েছে যে দর্শকরা এদের নিয়ে ট্রোল করছেন। তাদের বক্তব্য এই দুই নায়ক বিরাট মনের অধিকারী, তাই তারা কোন মেয়েকেই ফেরাতে পারে না।

Back to top button