বাংলা সিরিয়াল

‘এ কী শাশুড়িকে আবার কেউ দিদি বলে নাকি সিরিয়াসলি’! পুজোর মেলায় হংসিনী লক্ষ্মী কাকিমাকে দিদি বলে ডাকায় হাসির রোল নেটপাড়ায়

চলতি মাসেই ভ্যালেন্টাইন্স ডের দিনই শুরু হয়েছে ‘লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার’। ইতিমধ্যেই দর্শক টেনেছে এই ধারাবাহিক। ধারাবাহিকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে অপরাজিতা আঢ্যকে। ধারাবাহিকে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে একাধিক নামিদামি কলাকুশলীদেরও। তাদের মধ্যে দেবশঙ্কর হালদার, রত্না ঘোষাল, ভরত কল, রিমঝিমের মত একাধিক কলাকুশলীরা রয়েছেন।

ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে কিভাবে একজন মধ্যবিত্ত ঘরের বউ বাইরের পাশাপাশি গোটা সংসারটা নিজের পরিশ্রমে ধরে রেখেছে। দোকানের পাশাপাশি একা হাতে গোটা সংসার সামলায় লক্ষ্মী কাকিমা ‘একেবারে ফুল অন এনার্জি নিয়ে’। সম্প্রতি ধারাবাহিকে দেখা গিয়েছে লক্ষ্মী পূজা উপলক্ষে পাড়ার মাঠে ঘুগনির দোকান দিয়েছিল লক্ষ্মী কাকিমা। কিন্তু তার ছেলের বউ ও ছোট যায়ের ষড়যন্ত্রের জন্য তার রান্না খারাপ হয়ে যায়।

তারপরেও হাল ছাড়েননি লক্ষ্মী কাকিমা। ঘুগনিকে সবজির সাথে মিশিয়ে পাওভাজি বানিয়ে নেন তিনি। পাড়ার মেলায় লক্ষ্মী কাকিমার পাওভাজি একেবারে হিট। যখন দোকান সামলাতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছিল লক্ষ্মী কাকিমা তখনই সেখানে এসে হাজির হয় হংসিনী। সে যেচে সাহায্য করতে চায় লক্ষ্মী কাকিমাকে। কিন্তু তার সাহায্য নিতে প্রথমে রাজি ছিলেন না তিনি, পরে রাজি হন। এরপর তার সাথে হাতে হাত মিলিয়ে একেবারে ‘ফুল অন এনার্জি’ নিয়ে দোকান সামলে দেয় হংসিনী। এরপরে তাকে এক প্লেট পাওভাজি খাইয়ে শোধবোধ বলে বাড়ি পাঠিয়ে দিতে চাইলেও সে থেকে যায় সেখানেই। এরপরে ধারাবাহিকের গল্প কোন দিকে ঘুরবে! তা দেখার জন্য চোখ রাখতে হবে জি বাংলার পর্দায়।

যখন মেলাতে লক্ষ্মী কাকিমা দোকান সামলাতে হিমসিম খাচ্ছিল তখন হংসিনী এসে লক্ষ্মী কাকিমাকে দিদি বলে ডাকে, আর তা শুনেই এই মুহূর্তে রীতিমতো হাসছে গোটা নেটপাড়া। এমনকি এই নিয়ে কমেন্টও করেছেন একাধিক নেটিজেন। কেউ লিখেছেন, “শাশুড়িকে আবার দিদি সিরিয়াসলি”; আবার কারোর কথায়, কদিন পর যার ছেলের বউ হবে তাকেই দিদি বলে ডাকছে, এমন বিভিন্ন ধরনের মন্তব্যের দেখা মিলেছে। তবে দিনের শেষে বলাই বাহুল্য লক্ষ্মী কাকিমা হিট। দীর্ঘদিন পর ছোটপর্দায় অপরাজিতা আঢ্যকে ফিরে পেয়ে খুশি তার অনুরাগীরাও। এর আগে অভিনেত্রীকে শেষ ছোটপর্দায় দেখা গিয়েছিল ‘জল নুপুর’ ধারাবাহিকে। আর এখন তিনি সকলের কাছে তাদের প্রিয় পর্দার লক্ষ্মী কাকিমা।

Back to top button