বাংলা সিরিয়াল

শুদ্ধিকরণের নামে মুক্তার গায়ে ফুটন্ত জল ঢালতে বলল শৈল মা! সমস্ত রকম কুসংস্কার দেখানো হয় জি বাংলার ‘গৌরী এলো’ ধারাবাহিকে, ধারাবাহিকের উপর বেজায় ক্ষেপে রয়েছেন নেটিজেনরা

জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক গুলির মধ্যে অন্যতম একটি হলো গৌরী এলো। মাসখানেক আগে জি বাংলার পর্দায় শুরু হয়েছে এই ধারাবাহিক। মা কালীকে কেন্দ্র করে এই ধারাবাহিক শুরু হয়েছে। ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্র হলো গৌরী এবং ইশান। দুজনকেই ধারাবাহিকে মহাদেব এবং মা কালীর অংশ হিসেবে দেখানো হয়। এবং এই ধারাবাহিকের গৌরী এবং ঈশানের মূল শত্রু হলো শৈল মা। যিনি নিজেকে মা কালী রূপে সকলের সামনে তুলে ধরেন। একজন ভন্ড ব্রহ্মচারী বলা যায় তাকে যিনি মানুষ ঠকিয়ে পয়সা উপার্জন করেন।

সম্প্রতি ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে শৈল মা গৌরী এবং ঈশানের ক্ষতি করার জন্য নানান রকম ফাঁদ পেতে রেখেছে কিন্তু গৌরী বারবারই সে বিপদ থেকে বেরিয়ে আসছে। বাড়িতে অনেকেই আছে তারা শৈল মায়ের লোক ঠকানো পছন্দ করত না। তাই তাদের মধ্যে একজন আছে ঈশানের বোন তার নাম মুক্তা। সে শৈলমার ভক্তদের বুঝিয়ে সুজিয়ে নিজের দিকে করে নিতো।

আর সেই জন্যই শৈল মা তাকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য শুদ্ধিকরণের নামে তার গায়ে ফুটন্ত জল ঢালতে বলেছে। আর সেখানে ঈশানদের পরিবার এত উচ্চ বংশীয় এত শিক্ষিত হওয়া সত্ত্বেও কেউ কোনো প্রতিবাদ করেনি। যেখানে তাদের পরিবারের সবাই শিক্ষিত শুধু গৌরী বেশি পড়াশোনা করেনি। কিন্তু সবাইকে ছেড়ে একমাত্র গৌরী এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছে। যেখানে ঈশান একজন ডাক্তার সেও এ নিয়ে কোন কথা বলছে না।

আর তাই নিয়েই নেটিজেনরা বেজায় চটে রয়েছেন। অনেকেই বলছে যে ধারাবাহিকে এমন কুসংস্কার কি করে দেখানো হচ্ছে। যেখানে বর্তমান সমাজ অনেকটাই এগিয়ে গেছে। মানুষ আজকাল অনেক আধুনিক। আর সেখানে দাঁড়িয়ে ধারাবাহিকে একটা শিক্ষিত পরিবার এমন আজগুবি জিনিস দেখানো হচ্ছে প্রত্যেকে মেনে নিচ্ছে! নেটিজেনদের মতে এটা দেখানোর জন্য সমাজে কুপ্রভাব পড়তে পারে।

Back to top button