বাংলা সিরিয়াল

লাভগুরু হয়েও লাভ নেই! ছেলের জন্য কুমোরটুলি থেকে মেয়ে বানিয়ে আনতে হবে, দিদি নাম্বার ওয়ান এর মঞ্চে দাঁড়িয়ে রচনা ব্যানার্জিকে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন অভিনেতা সৌরভ চট্টোপাধ্যায় এর মা

বর্তমানে আমাদের সকলের প্রিয় ধারাবাহিক হলো মিঠাই। মিঠাই দেখেন না এমন দর্শক হয়তো হাতে গুনে খুব কম সংখ্যায় পাওয়া যাবে। নতুন নতুন চমক দিয়ে আবারো মিঠাই ধারাবাহিক দর্শকদের মনোরঞ্জন করতে সক্ষম হয়েছে। তাই তো হারিয়ে গিয়েও ফিরে এসেছে মিঠাই। টিআরপি তালিকার প্রথম স্থান দখল করে নিয়েছে। ধারাবাহিকের প্রতিটি সদস্যই এই ধারাবাহিক সফল করে তোলার পেছনে সমানভাবে কঠোর পরিশ্রম করেছে। এক একটি চরিত্র আরেকটি চরিত্রের পরিপূরক হয়ে উঠেছে এই ধারাবাহিক সফল করে তোলার জন্য। তাইতো একটি চরিত্র যদি ২-১ দিনের জন্য হারিয়ে যায় তাহলে দর্শকদের মন খারাপ হয়ে যায় যে সেই অভিনেতা অভিনেত্রী কোথায় গেলেন। যেমন কয়েকদিন আগেই ধারাবাহিক থেকে সোম চরিত্রটি হারিয়ে গিয়েছিল। তাই ধারাবাহিকের ভক্তরা অভিনেতা ধ্রুব সরকারের খোঁজ করছিলেন। পরে অবশ্য অভিনেতা ধারাবাহিককে ফিরে এসেছেন।

তেমনি সব চরিত্র গুলির মধ্যে অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং দর্শকদের পছন্দের চরিত্র হলো রাজীবের চরিত্র। রাজিব হলো মোদক পরিবারের নাত জামাই। অর্থাৎ সিদ্ধার্থের পিসিমণির একমাত্র মেয়ের বর। ধারাবাহিকের শুরুর দিন থেকে রাজীবকে আমরা দেখে আসছি। এই চরিত্রটি ধারাবাহিক সফল করে তোলার পেছনে অনেকটা ভূমিকা রয়েছে। চরিত্রটি যেমন মজার তেমনি কর্তব্য পরায়ণ। বিপদে-আপদে সবসময় মোদক পরিবারের পাশে থেকেছে রাজিব। মিঠাই এবং সিদ্ধার্থ কে খুব ভালবাসে এছাড়াও নিজের বাকি শালা শালীদের খুবই পছন্দের জিজু সে। আর ধারাবাহিকে এই রাজীবের চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেতা সৌরভ চট্টোপাধ্যায়।

ধারাবাহিক জগতে অভিনেতা নতুন নয়। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরেই বিভিন্ন ধারাবাহিককে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেতা। এমনকি টেলিভিশনের বড় পর্দাতেও বেশ কিছু চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাকে। বেশিরভাগ সময় পজিটিভ চরিত্রই দেখা মিলেছে সৌরভের। রানী রাসমণি ধারাবাহী কে নেগেটিভ চরিত্রে দেখা গিয়েছিল বটে কিন্তু অন্যান্য ধারাবাহিকে পজিটিভ চরিত্রে দেখা মেলে তার। ধারাবাহিকে যেমন রাজীবকে দেখি স্ত্রীর প্রতি কর্তব্য পরায়ণ স্ত্রীকে ভালোবাসে এক কথায় লাভ গুরু বলা চলে তাকে। কিন্তু বাস্তব জীবনে একেবারেই উল্টো সৌরভ। জীবনে এখনো পর্যন্ত কোন নারীর আগমন হয়নি। তাই ব্যাচেলার লাইফ এখনো কাটেনি সৌরভের। আর ছেলের বিয়ে না দিতে পেরে মা তো দুশ্চিন্তায় কপালে হাত দিয়েছেন। সম্প্রতি দিদি নাম্বার ওয়ান এর মঞ্চে মাকে নিয়ে হাজির হয়েছে সৌরভ। সেখানেই সৌরভের মা নিজের দুঃখের কথা রচনা ব্যানার্জি কাছে প্রকাশ করলেন। ছেলে কবে বিয়ে করবে তা নিয়েই চিন্তায় রয়েছেন তিনি। ছেলের নাকি কোন মেয়েকেই পছন্দ হয় না এবারে রচনা ব্যানার্জিকে তিনি জানালেন কুমোরটুলি থেকে মেয়ে বানিয়ে আনতে হবে। আর এই কথা শুনে হাসির রোল উঠলো গোটা মঞ্চ জুড়ে। কবে নিজের জীবনসঙ্গীকে খুঁজে পাবেন সৌরভ তার ভক্তরাও এই উত্তরের অপেক্ষাতেই রয়েছেন।

Back to top button