বাংলা সিরিয়াল

টিআরপি বাড়ানোর জন্য ধারাবাহিকের যা খুশি তাই দেখানো হচ্ছে, লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের উপর বিরক্ত দর্শকদের একাংশ

বর্তমানে বাংলা ধারাবাহিক বিনোদন জগতের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলেও এই ধারাবাহিক গুলি নিয়েই অনেক সময় দর্শকদের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়। এই ধারাবাহিকগুলি সম্পর্কে অনেক সময় দর্শকদের অনেক রকম অভিযোগ থাকে। সম্প্রতি সেরকমই একটি ধারাবাহিক স্টার জলসার এক্কাদোক্কার উপর ক্ষোভে ফেটে পড়লেন দর্শকেরা।

লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের রচিত এই ধারাবাহিক কয়েক মাস আগে শুরু হয়েছে টেলিভিশনের পর্দায়। আর শুরুর সময় থেকেই দর্শকদের মনে একটু একটু করে জায়গা তৈরি করে নিয়েছে রাধিকা পোখরাজের জুটি। বর্তমানে টিআরপি তালিকাতে বেশ ভালো স্থান দখল করে রয়েছে এই ধারাবাহিক।

সম্প্রতি ধারাবাহিককে দেখানো হচ্ছে রাধিকা এবং পোখরাজ এর বিয়ে নিয়ে দুই পরিবারে অনেক অশান্তি ঝামেলা হচ্ছে। রাধিকাকে কেউই পোখরাজের বউ হিসেবে মেনে নিতে পারছে না, বিশেষ করে পোখরাজের মা। তাই রাধিকা বিয়ে হয়ে আসার পর থেকে শ্বশুরবাড়িতে নানান রকম ভাবে অপমানিত হচ্ছে। তবে এবার সেই সব সীমা পেরিয়ে গেলেন গল্পের লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়।

একধাপ এগিয়ে গিয়ে দেখানো হলো রাধিকাকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে পোখরাজের মা। দর্শকদের একটা অংশ এই দেখে বেজায় ক্ষেপে উঠেছে। বিয়ের পর মেয়েদের শ্বশুরবাড়িতে অত্যাচার করা, অপমান করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। আর TRP বাড়ানোর জন্য সেটাই ধারাবাহিকে দেখাচ্ছেন লেখিকা।

বিয়ে হয়ে আসার পর থেকে পোখরাজের বাড়ির বিভিন্ন সদস্যের কাছে বিভিন্নভাবে অপমানিত হচ্ছে রাধিকা। এই পর্যন্ত ঠিক ছিল, কিন্তু ছেলের বউকে মেনে নিতে না পেরে তাকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া এটা দর্শক একেবারেই মেনে নিতে পারেনি।

অন্যদিকে আবার লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের অন্য আরেকটি ধারাবাহিক ধুলোকণাতেও লালন, ফুলঝুরি এবং তিতিরের ত্রিকোণ প্রেমের সম্পর্ক দেখানো হচ্ছে। একটা ছেলে কতবার কত মেয়ের সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে সেটা নিয়ে দর্শকদের একাংশ লেখিকার উপর বেজায় ক্ষেপে রয়েছে।

Back to top button