বাংলা সিরিয়াল

‘কয়বার খেয়ে যে পাঁচালী পড়ছে, নিজেই জানে না! আগে খেটে খাওয়া মানুষকে রেস্পেক্ট দিন! পাঁচালী পড়ছে আবার’, রান্নাঘরে সন্তোষী মায়ের পাঁচালী পড়ে তুমুল ট্রোলড সুদীপা

জি বাংলার জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো রান্নাঘর। এই রান্না ঘরের সঞ্চালিকা সুদীপা চট্টোপাধ্যায়। দীর্ঘদিন ধরে তিনি এই শো সঞ্চালনা করে গিয়েছেন এবং এই শোয়ের দৌলতে তার জনপ্রিয়তা আকাশ ছুঁয়েছে বলা যায়। কিন্তু দর্শক যাদের ভালবেসে মাথায় তোলেন তাদের আবার অনেক বিষয়ে খুঁত‌ও ধরেন। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় যে দর্শক তাদের ভালোবাসার মানুষের কোন একটি জিনিস এ খারাপ আচরণ দেখার পর তাকে যথেচ্ছ পরিমাণে ট্রোল করতে শুরু করেন। এমনটাই হয়েছে রান্নাঘরের সঞ্চালিকা সুদীপা চ্যাটার্জীর ক্ষেত্রে।

কিছুদিন আগে সুদীপা চ্যাটার্জী একটি খাবার সরবরাহকারী সংস্থার উদ্দেশ্যে লেখেন,“আমি শুধু জানতে চাই একজন ডেলিভারি বয় ও ফোন না করে কেন গন্তব্যে পৌঁছতে পারে না? ফোন করে কেন বলেন, আমি আসছি আপনি গেটটা খুলুন। আমি কি দারোয়ান যে গেট খুলবো?”- তার এই কথার পরে রীতিমত তাকে নিয়ে ট্রোলিং শুরু হয়। নেটিজেনরা তাকে নিয়ে তুলোধোনা করতে শুরু করে। এরপর সুদীপা নিজের কথার সাপেক্ষে যুক্তি খাড়া করে আগেকার দিনের পোস্টমাস্টার দের প্রসঙ্গ তুললেও নেটিজেনরা সেই প্রসঙ্গে তাকে এখনো ক্ষমা করতে পারেন নি।

নেটিজেনরা যে তাকে ক্ষমা করতে পারে নি তার প্রমান বর্তমান সময়ের একটি ভিডিও। জি বাংলা সম্প্রতি একটি ভিডিও পোস্ট করেছে যেখানে দেখানো হচ্ছে যে শুক্রবার সন্তোষী মার পুজোর দিন সুদীপা রান্নাঘরে সন্তোষী মায়ের ব্রত কথা পড়ছে। এই ভিডিও দেখে নেটিজেনরা বলতে শুরু করেছেন যে,‘কয় বার খেয়ে দেয়ে যে পাঁচালী পড়ছে নিজেই জানে না! আগে খেটে খাওয়া মানুষকে রেস্পেক্ট দিন! পাঁচালী পড়ছে আবার’- আসলে ডেলিভারি বয়দের কে নিয়ে সেই পোষ্টের জন্য মানুষ এখনো তাকে ক্ষমা করতে পারেনি তা বোঝাই যাচ্ছে, অনেকের বক্তব্য, সুদীপা হলো রূপঙ্কর বাগচী লাইট ভার্সন।

Back to top button