বাংলা সিরিয়াল

পুরুষতান্ত্রিক সমাজের মুখে সপাটে চড়! মুমুর হবু বর গাইতে জানে, নাচতে জানে এবং হাঁটতে জানে কিনা যাচাই করে দেখল উর্মি

বর্তমানে জি বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় সিরিয়াল হল ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’। সিরিয়াল মানেই বাংলা বিনোদন জগতের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। সব কাজ শেষ হয়ে যখন পরিবারের সকলে একটু সময় পান তখনই ড্রইং রুমের সামনে টিভি চালিয়ে বসে পড়েন পরিবারসহ সিরিয়াল দেখার জন্য। বেশ কয়েকদিন আগেই শুরু হয়েছে ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’ ধারাবাহিকের পথ চলা। গল্পের নতুন নতুন চমকে মনে জায়গা করে নিচ্ছে এই ধারাবাহিক।

পরিচালক স্বর্ণেন্দু সমাদ্দারের পরিচালিত এই ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন অন্বেষা হাজরা এবং ঋত্বিক মুখার্জি। অন্বেষা হাজরা অভিনয় করছেন উর্মির চরিত্রে এবং ঋত্বিক মুখার্জি অভিনয় করছেন সাত্যকির চরিত্রে। ইতিমধ্যেই টিআরপি দৌড়ে ছোট্ট ছোট্ট পায়ে উপরের দিকে উঠতে শুরু করেছে এই ধারাবাহিক।

বিভিন্ন নতুন নতুন ঘটনা প্রবাহের মধ্যে দিয়ে জমে উঠেছে উর্মি এবং সত্যকির লাভ স্টোরি। অষ্টমঙ্গলায় বিএফ উর্মি নিজের বরের অপমান সহ্য করতে পারেনি। জবাব দিয়েছে পুরো পরিবারের মুখের ওপর তার পরে তার স্বামীর হাত ধরে বেরিয়ে এসেছে বাপের বাড়ি থেকে। এই ঘটনার পর থেকেই সাত্যকীর অদ্ভুত পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যা উর্মির মতোই দর্শকেরাও চুটিয়ে উপভোগ করছেন।

বর্তমানে সিরিয়ালের প্লট অনুযায়ী বিয়ের পালা উর্মির ননদ মুমুর। তার ননদের বিয়ের দায়িত্ব সে নিজেই নিয়েছে। উর্মি তার সরল সাদাসিদে মন নিয়ে যখন ঠাম্মার কাছে গল্প শুনে আগেকার দিনে মেয়েদের সমস্ত দক্ষতা পরীক্ষা করে দেখা হতো তখন সে বুঝতে পারেনা এটা পুরুষতান্ত্রিক সমাজের একটা রীতিমাত্র। আগেকার দিনের নিয়ম অনুযায়ী উর্মি তার ননদ কে কখনো হাটিয়ে আবার কখনো গাইয়ে আবার কখনো গায়ের আসল রং যাচাই করে দেখিয়ে দেয়।

তারপরই উর্মি বলে বসে ছেলেরও সব গুণ পরীক্ষা করে দেখতে চায় সে। তারপরে বড়লোক বাড়ির ডাক্তার ছেলেকে কয়েকটা বিশেষ টাস্ক দেয়া হলে সবকটা টাস্ককেই ডাহা ফেল করে সে। এরপরে বেজায় চটে যায় পাত্রপক্ষ। কিন্তু উর্মি বুঝতে পারে না ছেলের বাড়ির লোক যেমন তাদের মেয়েকে যাচাই করল তারাও যদি সেই ভাবেই ছেলেকে যাচাই করে নেয় তাহলে ক্ষতি কিসের!

Back to top button