বাংলা সিরিয়াল

‘জন্মাষ্টমীতে সিদ্ধার্থের অঙ্গীকার’! দর্শকমহলে সাড়া ফেলে দিয়ে প্রকাশ্যে এল মিঠাই ধারাবাহিকের ‘জন্মাষ্টমী মহা সপ্তাহ’ এর বিশেষ প্রমো

সম্প্রতি জি বাংলা চ্যানেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে প্রকাশ্যে আনা হয়েছে মিঠাই এর “জন্মাষ্টমী মহা সপ্তাহ” পর্বের এক ঝলক। যা দেখে রীতিমতো দর্শকদের চোখে জল এসে গেছে। সবাইকে তাক লাগিয়ে প্রকাশিত হয়েছে সেই নতুন প্রোমো। এতদিন মিঠাইয়ের দর্শকেরা মিঠাই এর উত্থান গাঁথা দেখতে দেখতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছিল। তবে জীবনে ভালো সময় যেমন আসে ঠিক তেমনি জীবনে খারাপ সময় আসে। সম্প্রচার হয়ে যাওয়া দেখা গেছে সিদ্ধার্থের বিদেশে যাওয়ার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে অনেকদিন ধরেই সিদ্ধার্থের দাদা সোম এবং সিদ্ধার্থের বন্ধু তোর্সা মিঠাই কে জব্দ করার প্ল্যান করছিল।

প্রমো অনুযায়ী যেখানে দেখা যাচ্ছে মিঠাই গরাদের পিছনে গোপাল পূজা করছে। সিদ্ধার্থ বিদেশ থেকে ছুটে এসেছে মিঠাইকে রক্ষা করতে। মিঠাই সিদ্ধার্থকে দেখে ছুটে গিয়ে করুন মুখে বলছে, “দাদাবাবু তুমি এসেছ!” মিঠাই এর হাতে হাত রেখে সিদ্ধার্ত মিঠাই কে কথা দিচ্ছে , “আজ আমি তোমার গোপালের সামনে দাঁড়িয়ে প্রতিজ্ঞা করলাম যেভাবেই হোক আমি তোমাকে এখান থেকে বার করে নিয়ে যাব ঠিক।”

বেশ কিছুদিন আগেই মিঠাইকে কাবির সিং এর স্টাইলে গুন্ডাদের হাত থেকে রক্ষা করেছিল মিঠাইয়ের উচ্ছে বাবু। তবে শেষ হয়ে আসছে সিদ্ধার্থের চ্যালেঞ্জ নেয়া একমাস। দাদুর প্ল্যান অনুযায়ী সিদ্ধার্থের সাথে এক মাস স্বামী-স্ত্রী হিসাবে থাকতে রাজি হয়েছিল। জোর গলায় বলেছিলেন, “আমি একমাস ওর সাথে থেকে প্রমাণ করে দেবো যে বিয়ের বন্ধন বলে কিছু হয়না।”

তবে ইতিমধ্যেই যে সিদ্ধার্থ মিঠাইকে মনে মনে ভালোবেসে ফেলেছে তা আর বলার অবকাশ রাখে না। রাখির স্পেশাল গিফট উপলক্ষে সিদ্ধার্থের তিন বোন সিদ্ধার্থের কাছে আবদার করেছে সে যেন মিঠাই কে তার স্ত্রী হিসেবে যোগ্য সম্মান দেয়। এই নিয়ে সিদ্ধার্থ নিজেও চিন্তায় পড়ে গেছে। ইতিমধ্যেই সিদ্ধার্থের কাছে বিদেশ চলে যাওয়ার একটি অফার এসেছে। যেখানে চার বছরের জন্য তাকে হয়তো সিঙ্গাপুরে গিয়ে থাকতে হতে পারে। তবে সিদ্ধার্থ কিছু মুহূর্তের জন্য মিঠাই কে মেনে নেবে ভাবলেও পরক্ষনেই মনে পড়ে যায় তার মায়ের কথা। মনে পড়ে যায় বাবার থেকে পাওয়া মায়ের লাঞ্ছনার দিনগুলো। সেই প্রসঙ্গেই সিদ্ধার্থের কাছে স্বীকার করে, “আমি বিশ্বাস করি বিয়েতে পেইন ছাড়া আর কিছু পাওয়া যায় না।”

Back to top button