বাংলা সিরিয়াল

বাউলের বেশে নিজের বাড়িতে হাজির সিদ্ধার্থ! মিঠাই কি ছদ্মবেশী উচ্ছেবাবুকে চিনতে পারলো?

দীর্ঘ বেশ কয়েকবার বেঙ্গল টপার হাওয়া ধারাবাহিক মিঠাই। বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে গাঁটছড়া এবং ধুলোকণা মিঠাইয়ের সিংহাসন কেড়ে নিলেও জি বাংলার এই ধারাবাহিকের জনপ্রিয়তা কিন্তু আজও তুঙ্গে। আসলে এই ধারাবাহিকে সেইভাবে নোংরা পলিটিক্স, পারিবারিক বিবাদ, পরকীয়া, নায়ক-নায়িকার বহুবিবাহ এইগুলো জায়গা পায়নি বলেই ধারাবাহিকটি দর্শকদের এত পছন্দের হয়ে উঠেছে আর সর্বোপরি উচ্ছে বাবু ও তুফান মেল এর রসায়ন সকলের ভারী পছন্দের।

সম্প্রতি মিঠাইতে একটি নতুন ট্র্যাক এসেছে। যা দীর্ঘ কয়েক দিন ধরেই চলছে। ধারাবাহিকে টুইস্ট আনবার জন্য সিদ্ধার্থকে নিখোঁজ হিসেবে দেখানো হয় প্রথমে, তারপর‌ই রিকি দ্য রকস্টার হিসেবে আবির্ভাব হয় সিদ্ধার্থর। আসলে কিছু অসৎ ব্যবসায়ীদের ধরার জন্য সিদ্ধার্থ এই পুরো পরিকল্পনাটা করে। প্রথমে সে তার একটি মিথ্যা অ্যাক্সিডেন্টের নাটক করে, তারপর ভোল পাল্টে সম্পূর্ণ অন্যরকম বেশে হাজির হয়।

এইরকম নাটক করবার আগে সে মিঠাইকে এইরকম একটা বিষয় যে ঘটতে পারে তার কিছুটা ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিল। তাই সিদ্ধার্থ নিখোঁজ হওয়ার পরেও সে ভেঙে পড়েনি বরং রিকি দ্য‌ রকস্টার কে দেখে সেই সিদ্ধার্থ ভেবে বাড়ি নিয়ে আসে কিন্তু সিদ্ধার্থ এত সহজে সব সত্যি সামনে আনতে চায়নি, তাই সে জানিয়েছে রিকি। এমনকি তার পরিচয় সত্যি করে তুলতে ধারাবাহিকে এন্ট্রি নিয়েছে রিকির গার্লফ্রেন্ড ও আর মিঠাই নানান রকম দোলাচলের মধ্যে দিয়ে রয়েছে। কখনো তার মনে হয় এই তার সিদ্ধার্থ, কখনো আবার তার সব হিসেব গুলিয়ে যায়!

সম্প্রতি মিঠাই ধারাবাহিকের একটি প্রোমো রিলিজ করেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে সিদ্ধার্থ সম্পূর্ণ ছদ্মবেশে মোদক বাড়িতে উপস্থিত হয়েছে। বাউল বেশ ধরেছে সে। তার হাতে একতারা নিয়ে সে গান গাইছে, “তারে ধরি ধরি মনে করি ধরতে গেলে আর পেলাম না। দেখেছি রুপ সাগরে মনের মানুষ কাঁচা সোনা”। একজন বাউল মোদক বাড়ির সামনে গান গাইছে, মোদক বাড়ির সকলে অর্থাৎ দাদু, ঠাম্মি, নিপা থেকে শুরু করে মিঠাই প্রত্যেকই বেরিয়ে আসে বাড়ির বাইরে। ছদ্মবেশী সিদ্ধার্থের গান শুনে তারা মুগ্ধ হয়ে ওঠে। কিন্তু ছদ্মবেশে মোদক বাড়িতে কেন প্রবেশ করল সিদ্ধার্থ? তার এই ছদ্মবেশ কি কেউ কখনো ধরতে পারবে না? মিঠাই ও কি ধরতে পারবেনা তার উচ্ছে বাবুকে? জানতে হলে চোখ রাখতে হবে রাত আটটায় জি বাংলাতে।

Back to top button