বাংলা সিরিয়াল

বিশ্ব ইতিহাসে প্রথম প্রিয় ধারাবাহিক শেষ হওয়ায় খুশি হয়েছেন ধারাবাহিকের ভক্তরা! পুজোর পর শেষ হচ্ছে পিলু! শুনে ভীষণ খুশি হয়ে গিয়েছেন পিলু ভক্তরা! কিন্তু কেন?

কোন ভালো ধারাবাহিক শেষ হয়ে গেলে ভক্তরা স্বাভাবিকভাবেই একটু মন খারাপ করে বসেন। সাম্প্রতিককালের জনপ্রিয় দুই ধারাবাহিক মনফাগুন এবং খেলাঘর ধারাবাহিক শেষ হওয়ার পর সোশ্যাল মিডিয়া খুললেই ভক্তদের কষ্ট ভক্তদের যন্ত্রনা লেখার আকারে বেরিয়ে আসতো। এক সময় কার জনপ্রিয় ধারাবাহিক প্রথমা কাদম্বিনীর ক্ষেত্রেও এমনটাই ঘটেছিল। তবে যে গুটিকতক ধারাবাহিক বললাম শুধু সেই ধারাবাহিক নয় স্বাভাবিকভাবে যেকোনো ধারাবাহিক শেষ হলেই সেই ধারাবাহিকের ভক্তরা ভীষণভাবে কষ্ট পান যে তাদের প্রিয় জুটিকে আর দেখতে পাবেন না বলে।

কিন্তু কিছু কিছু ভক্ত হন এদের থেকে আলাদা যারা তাদের পছন্দের ধারাবাহিকটি শেষ হলে কষ্ট পান না বরং খুশি হন। এইরকম‌ই ভক্ত মন্ডলী হল পিলু ধারাবাহিকের ভক্ত মন্ডলী। পুজোর পরে পিলু ধারাবাহিক শেষ হবে শুনে যারা খুশি হয়েছেন আনন্দিত হয়েছেন। কারণ তাদের বক্তব্য পিলু এবং আহিল কে মুখ্য চরিত্র জেনে এবং পিহির গল্পের রসায়ন দেখবেন বলে তারা পিলু দেখতে শুরু করেছিলেন কিন্তু মাঝপথে গল্পের গরু গাছে উঠে যায়‌।

গল্প খে‌ই হারিয়ে ফেলে এবং পিলু আর আহির মুখ্য চরিত্র থেকে ক্রমশ সাইড হয়ে যায় আর মুখ্য চরিত্র হয়ে উঠে আসে রঞ্জা আর মল্লার। ছবির কভার ফটো থেকে শুরু করে সর্বত্র রঞ্জা কে গুরুত্ব দেওয়া হতে থাকে। তাই তাদের কাছে অনেক আগেই পিলু ধারাবাহিক শেষ হয়ে গেছে এখন তাদের ভালো লাগছে এটা ভেবে পিলু ধারাবাহিক সত্যি সত্যি শেষ হলে গৌরব আর মেঘা কোন অন্য ধারাবাহিকে নতুনভাবে ফিরে আসতে পারবেন।

এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একজন পিহির ভক্ত লিখেছেন,“রন্জা”সিরিয়াল শেষ হবে শুনে মন্জা ফ্যানরা কেঁদে ভাসাচ্ছে,
আমরা পিহির ফ্যানরা হাসছি, তার কারণ আমাদের কাছে পিলু সিরিয়াল অনেকদিন আগেই শেষ হয়ে গেছে,
যেদিন থেকে পিলু আহিরের গল্প মেইন লাইন থেকে সরে গেছে,”

আরেকজন আবার লিখেছেন,“ শুনলাম পুজোর পর পিলু শেষ হয়ে যাবে,জানিনা নিউজটা কতটা সত্যি,তবে হ্যা শেষ হলে সত্যি খুশি হবো, আমি চাই আহির( গৌরব দা) পিলু ( মেঘা দি) জুটি বেঁধে নতুন সিরিয়ালে আসুক,
আর হ্যা, এই গল্পে যেনো রন্জা ( ইধিকা) নামক কেউ না থাকে,লেখিকা যেনো রন্জা ও মল্লার কে নিয়ে আলাদা করে রন্জা-২ সিরিয়াল আনে।

#we_want_pihir_juti_again”

Back to top button