বাংলা সিরিয়াল

“আমি তেতো খাবার খুব ভালবাসি,আমার স্বামী অভিষেক খুব ভাল রান্না করেন, ও রান্না করে, আর আমি খাই” – নিজের “রান্না ঘরের গপ্পো” বললেন সঞ্চালিকা সুদীপা চক্রবর্তী

ছোট পর্দায় আসতে চলেছে নতুন রান্নার শো। সঞ্চালনার দায়িত্বে থাকবেন সুদীপা চক্রবর্তী। থিয়েটার থেকে বড় পর্দা আবার টেলিভিশনে অভিনয় করতে দেখতে পাওয়া গেছে এই অভিনেত্রীকে। শুধু অভিনয় নয় টেলিভিশনের পর্দায় কাজ করেছেন সঞ্চালিকা হিসেবে এর আগেও। কিন্তু নিজে তেমন রান্না করতে ভালোবাসেন না। আবার কাজের চাপে সময় হয়ে ওঠেনা অভিনেত্রীর। কিন্তু তবে প্রশ্ন থেকে যায় তাহলে কেন এই শো? একটি বিশিষ্ট সংবাদ মাধ্যমের তরফে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিলেন সুদীপা।

অভিনেত্রীকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, অভিনেত্রী কি রান্না করতে ভালোবাসেন? সেজন্যই এই শো দিয়েই কামব্যাক করছেন টেলিভিশন? উত্তরের সুদীপা বলেন, “না না, একবারেই তেমন কিছু নয়। সঞ্চালনা করতে বরাবরই ভালবাসি। টেলিভিশনেও নিয়মিত শো-এর অ্যাঙ্কারিং করেছি (‘ধন্যি মেয়ে’ শো-এ দেখা যায় সঞ্চালিকা সুদীপ্তাকে)। তারপর আস্তে-আস্তে টিভির শোয়ের ফর্ম্যাট পাল্টে যায়। সুপারস্টাররা এসে শো করছেন। আমি ঠিক সেই বিষযটার সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারিনি। আর টেলিভিশন করা মানেই তো গোটা একটা মাস দিয়ে দেওয়া। যেহেতু আমি মুলত সিনেমাটাই বেশি করি, তাই ইচ্ছে থাকলেও টেলিভিশন করা হয় না। তবে এই শো-টা আলাদা। এখানে কাজ করেও আমার হাতে নিজস্ব সময় থাকবে। যেখানে আমি আমার পছন্দসই কাজ করতে পারব, তাই-ই এই শো করা”।

কিন্তু এটি একটি রান্নার শো। তাহলে কি সঞ্চালিকা সুদীপও রান্নার ওস্তাদ? সুদীপার কথায়, “পারি, তবে সেটা খুব মুড অনুযায়ী। আমায় যদি রোজ রান্না করতে হয়, মানে রোজকার ডাল-ভাত তাহলে কিছুই হবে না। তবে আমি নিজে ডেসার্ট করতে ভালবাসি। সেটা আবার বেশ উৎপটাং (এই শব্দটাই ব্যবহার করেছেন সঞ্চালিকা-অভিনেত্রী)… মানে নানা রকম জিনিসের সঙ্গে ফিউশন করে”।

অর্থাৎ রান্না খুব একটা তেমন পারেন না। রান্না করতেও ভালবাসেনা। তাহলে কি সঞ্চালিকা খেতে খুব ভালবাসেন? সুদীপা নিজের মুখেই বলেন, “অবশ্যই। আমি তেতো খাবার খুব ভালবাসি। মানে, নিম-বেগুন, উচ্ছে চচ্চড়ি সরষে দিয়ে… স-অ-অ-অ-ব খুব পছন্দ। আমার স্বামী অভিষেক (সাহা) খুব ভাল রান্না করেন। আমরা কাজ ভাগ করে রেখেছি। ও রান্না করে, আর আমি খাই (হো-হো করে হাসি)”।

প্রসঙ্গত বড় পর্দা ছাড়া সুদীপা কে টেলিভিশনে খুব একটা এখন আর দেখতে পাওয়া যায় না। খেলা ধারাবাহিক শেষবারের জন্য দেখতে পাওয়া গিয়েছিল তাঁকে। ওটিটি প্লাটফর্মেও কাজের অফার না পাওয়ায় দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না অভিনেত্রীকে। তবে মেগা ধারাবাহীকে অভিনয় করা নিয়ে অভিনেত্রী বলেন, “মেগা ধারাবাহিক করতে গেলে বেশি সময় দিতে হয়, সেই কারণে সিনেমায় অভিনয় করে মেগা করাটা সম্ভব হয় না”। যদি ইতিমধ্যেই টেলিভিশনের সুদীপার কামব্যাকের নন ফিকশন শো এর প্রমো এয়ার করা হয়েছে। অভিনেত্রীকে বহুদিন বাদে সঞ্চালিকার অবতারে ১৭ই অক্টোবর থেকে কালার্স বাংলার পর্দায় প্রত্যেকদিন বিকেল ৫ টায় দেখতে পাওয়া যাবে “রান্নাঘরের গপ্পো” এর হাত ধরে।

Back to top button