টুইটারে সবাইকে আনফলো করলেন ইমরান খান, ধর্ষকদের জন্য নয়া আইন পাকিস্তানে

ধর্ষকদের শাস্তি দিতে পাক—সরকার এক নতুন আইন আনতে চলেছে৷ দিন কয়েক আগেই এই খবর প্রকাশ্যে আসে৷ একরকমের রাসায়নিক প্রয়োগ করে পুরুষাঙ্গ অকেজো করে দেওয়া হবে ধর্ষকদের ৷ ক্রমবর্ধমান ধর্ষণের ঘটনা কমাতেই পাকিস্তান সরকারে নতুন আইন প্রণয়ন করতে চলেছে বলে একটি পাক—সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর৷ কিন্তু ইমরান খান এখনও অবধি এ বিষয়ে কিছু ঘোষণা করেননি৷

তবে এরই মধ্যে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান টুইটারে সকলকে করে দিয়েছেন আনফলো৷ এমনকি প্রথম স্ত্রী জেমাইমা গোল্ডস্মিথকেও রেখেছেন এই তালিকায়৷ টুইটারে ইমরান খানের সরকারি আকাউন্টের ফলোয়ার সংখ্য ছিল ১কোটি ২৯লক্ষেরও বেশি৷ আকাউন্টটি তৈরী হয়েছিল ২০১০সালের মার্চ মাসে৷ তবে কেন হঠাৎ এই সিদ্ধান্ত তা নিয়ে কিছু জানা যায়নি৷ টুইটার ব্যবহারকারীরা অবশ্য বিষয়টিকে ট্রোল করতেও ছাড়ছেন না৷ ধর্ষণ সংক্রান্ত নয়া আইন নিয়ে পাক—সরকারের তরফে কিছু জানা না গেলেও সূত্রমাধ্যম খবর যে ইমরান খান জানিয়েছেন যে এই নতুন আইন হবে স্বচ্ছ ও কঠোর৷

ইমরান আরও জানিয়েছেন যে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়৷ ধর্ষিতারাও যাতে নিশ্চিন্তে অভিযোগ জানাতে পারে সেদিকেও নজর দিতে হবে৷ পুলিশ আর প্রশাসনকে তৎপর হতে হবে এ বিষয়ে৷ সূত্রের খবর, এই আইনে ফাস্ট ট্র্যাক আদালতে সংশ্লিষ্ট মামলায় দেরী হবে না ৷ ধর্ষিতারা অভিযোগ জানালে তাদের পরিচয়ুও থাকবে গোপন৷ প্রসঙ্গত ২০১৮সালে লাহোরে একটি ৭বছরের শিশুকে গণধর্ষণ করা হয় ৷ উত্তাল হয় দেশ৷ ধর্ষকদের শাস্তি কি হবে সে নিয়ে প্রচুর আলোচনা হয়৷ এরপর পাক সরকারের এই নতুন আইন৷

ধর্ষকদের ফাঁসি দেওয়া হবে কিনা প্রশ্ন উঠলে ইমরান বলেন প্রাথমিক স্তরে পুরুষাঙ্গ অকেজো করে দেওয়া হবে৷ আর তারপরই ধাপে ধাপে নেওয়া হবে সিদ্ধান্ত৷ এছাড়াও তিনি আরও বলেন যে ধর্ষণের ঘটনা ও শিশু নিগ্রহ কমাতে ত্রি—স্তরীয় আইন আনা হবে ,যৌন নিগ্রহকারীদের নামও নথিভূক্ত করা হবে আর ধর্ষণকারীদের সাজা দেওয়া হবে৷ আপাতত সূত্রমাধ্যম খবর এটুকুই৷