মধ্যরাতে আচমকাই আপার প্রাইমারী চাকরীপ্রার্থীদের শান্তিপূর্ণ অবস্থানে পুলিশের বলপ্রয়োগ, তুলে দেওয়া হল আন্দোলোন

রাজ্যে নানান রাজনৈতিক জটিলতা চলার পাশাপাশি বহুদিন ধরে চলছে আপার প্রাইমারী শিক্ষকদের আন্দোলোন৷ পাশ করে বসে থাকা শিক্ষকদের প্লেসমেন্ট দিচ্ছে না রাজ্য সরকার,এ নিয়ে ক্ষুদ্ধ গোটা প্রাথমিক চাকরীপ্রার্থী মহল৷ দিন কয়েক ধরে তারা তাদের বিক্ষোভ জানাচ্ছিল এবং মঙ্গলবার সল্টলেকে স্কুল সার্ভিস কমিশনের কার্যালয় আচার্য ভবনের সামনে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবস্থানে বসে পড়েন তারা৷ অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হন প্রায় কয়েকশো আপার প্রাইমারির চাকরীপ্রার্থী৷ নিয়োগের দাবীতে সরব আচার্য ভবন চত্বর৷

তবে এরপরেই হঠাৎ গভীর রাতে আচার্য ভবনের সামনে অবস্থানরত আন্দোলোনকারীদের সরিয়ে দেয় বিধানসভা থানার পুলিশ৷ পুলিশের তরফে জায়গা খালি করতে নির্দেশ দেওয়া হলে পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়ে আন্দোলোনকারীরা৷ সেখান থেকে তাদের গাড়িতে তুলে নিয়ে গিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় শিয়ালদহ স্টেশন চত্বরে৷ এই ঘটনায় ক্ষুদ্ধ আন্দোলোনকারীরা পথ অবরোধ করে বেশ কিছুক্ষণ৷ রাত দুটো নাগাদ স্টেশনেই তারা বসে পড়ে অবস্থানে৷

বিধাননগর পুলিশের বিরুদ্ধে আন্দোলোনকারীদের দাবী যে তাদের শান্তিপূর্ণ অবস্থানে বাধা দিয়েছে পুলিশ এবং বলপূর্বক তাদের আন্দোলোনকে তুলে দিয়েছে৷গতকাল রাত ১টা নাগাদ ঘটে ঘটনাটি৷ পুলিশের তরফে জানানো হয় যে ইতিমধ্যেই রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রীর সাথে আন্দোলোনকারীদের বৈঠক হয়েছে৷ তারা আরও দাবী করেন যে শিক্ষামন্ত্রীর সাথে আলোচনার পর আন্দোলোনকারীদের অবস্থান তুলে নেওয়ার কথা ছিল৷ তবে একথা মানতে নারাজ আপার প্রাইমারী চাকরীপ্রার্থীরা৷

দিনের আলোতে একাজ না করে আচমকাই গভীর রাতে আপার প্রাইমারী চাকরীপ্রার্থীদের তাদের শান্তিপূর্ণ অবস্থানে বাধা দেওয়া হল কেন? এ নিয়ে উঠছে প্রশ্ন৷ এ রাজ্যে চাকরীর বেহাল অবস্থার দিকে নজর দিচ্ছে না রাজ্য,এমনকি পাশ করে বসে থাকা শিক্ষকদেরও নিয়োগের কোনো নোটিশ জারি করা হচ্ছে না সরকার তরফে৷ আন্দোলোনকারীরা নিয়োগের দাবীদেই অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হয়েছিলেন,কিন্তু মধ্যরাতে পুলিশের আচরণ নিন্দাজনকই বলা চলে৷