ভাইরাল

এবার রানু মন্ডলের কন্ঠে ‘কাঁচা বাদাম’ গান শুনে রীতিমতো হেসে কুটোপাটি খেল গোটা নেটদুনিয়া, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরেই মানুষের মাঝে সাময়িক স্টার হয়েছিলেন রানু মন্ডল। স্টেশনে বসে গান গেয়ে ভিক্ষা করতেন তিনি। এক স্বহৃদয় ব্যক্তির দৌলতেই তিনি ভাইরাল হয়েছিলেন গোটা নেটদুনিয়ায়। এমনকি তার চর্চা চলেছিল বলিউডের একাধিক তারকাদের মধ্যেও। বলিউডের গায়ক-কম্পোজার হিমেশ রেশমিয়ার তৈরি করা একটি গানে তিনি প্লেব্যাকও করেছিলেন ঐ সময়ে। তবে পরবর্তীকালে নিজের দোষেই সব হারিয়েছেন তিনি। তার আত্মঅহংকার তাকে আবারো নামিয়ে এনেছে সেই পুরোনো জায়গাতেই। বর্তমানে রানু মন্ডল রানাঘাটে তার সেই পুরোনো জায়গাতেই ফিরে এসেছেন।

ইদানিং রানু মন্ডল সোশ্যাল মিডিয়ায় একজন কমেডি কনটেন্ট হয়ে উঠেছেন। তাকে নিয়ে কোনো না কোনো কারণে ট্রোল চলতেই থাকে নেটিজেনদের মধ্যে। তিনি নিজের অদ্ভুত সাজগোজ ও কাণ্ডকারখানার জন্যই প্রতিমুহূর্তে হাসির খোরাক হয়ে ওঠেন মানুষের কাছে। নেটিজেনদের একাংশের দাবি, তিনি ভারসাম্যহীন, আবার একাংশের দাবি তিনি যদি ভারসাম্যহীন হতেন তাহলে এমন গান গাইতে পারতেন না। অনেকের মতে, এমন একজন অভাবী, দরিদ্র, ভারসাম্যহীন মানুষকে নিয়ে হাসাহাসি না করাই শ্রেয়। তবে কে শোনে কার কথা! প্রতিদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখলেই রানু মন্ডলকে নিয়ে কোনো না কোনো খবর সামনে আসবেই।

সম্প্রতি আবারো রানাঘাটের রানু মন্ডল ভাইরাল হলেন ‘কাঁচা বাদাম’ গানটি গেয়ে। ভুবন বাদ্যকর নামে এক ব্যক্তি বাদাম বিক্রয়ের জন্য এই গানটি নিজে লিখে সুর দিয়েছেন। নিজের এই অভিনব পদ্ধতিতে বাদাম বিক্রির জন্য এই মুহূর্তে ভুবনবাবু গোটা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। ইতিমধ্যেই অনেকে তার গান নিয়ে কাটাছেড়া করা শুরু করে দিয়েছেন। বাদ থাকলেন না রানু মন্ডলও। লাল-হলুদে জামা ও বেগুনি রঙের সোয়েটার পড়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে এই গান গাইলেন তিনি।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে স্পষ্ট বোঝাই যাচ্ছে কেউ একজন এই ভিডিও বানিয়ে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে দিয়েছেন। ঋত্বিক বণিক নামের এক যুবক এই ভিডিওটি মজা করার জন্যই নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার পাতা থেকে শেয়ার করেছেন, তা বোঝাই যাচ্ছে। আর তারপরেই তা ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে নেটনাগরিকদের মধ্যে। এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই আবারো সকলের কাছে হাসির খোরাক হয়ে উঠেছেন রানু মন্ডল।

Back to top button