ভাইরাল

সরকারি চাকরি করা ছেলে পেয়ে প্রেমিকের সাথে ব্রেকআপ! হবু বরের সামনে মালাবদলের সময় বউকে বিয়ের আসরে জোর করে সিঁদুর পরিয়ে দিল প্রাক্তন প্রেমিক, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

বর্তমান যুগে সোশ্যাল মিডিয়ায় কোন কিছুই ভাইরাল হতে বিশেষ সময় লাগে না। ভালো হোক কিংবা খারাপ কোন কিছুর কনটেন্ট যদি নেটিজেনদের আকর্ষণ করতে পারে তাহলে তা ভাইরাল হবেই। তবে সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের একটি বিয়ে বাড়ির ঘটনা সকলের সামনে উঠে এসেছে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে, যা দেখে চোখ কপালে উঠেছে নেটিজেনদের একাংশের।

সম্প্রতি যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে সেখানে দেখা গিয়েছে বিয়ের আসরে হবু বরের সামনে তার বউকে এক যুবক অর্থাৎ মেয়েটির প্রাক্তন প্রেমিক এসে জোর করে সিঁদুর পরিয়ে দিচ্ছে। আর এই ভিডিও নেটমাধ্যমে শেয়ার হওয়ার পর থেকেই ঝড়ের গতিতে ছড়িয়ে পড়েছে নেটিজেনদের মধ্যে। ঐ বিয়ের আসরে উপস্থিত হবু বর-বউয়ের পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশীদের বোঝার আগেই এমন ঘটনা ঘটিয়েছে এই যুবক। উত্তরপ্রদেশের গোরখপুরের ঘটনা এটি।

সম্প্রতি বিবেক পান্ডে নামে এক নেটিজেন নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এই ভিডিও শেয়ার করেছেন যা এই মুহূর্তে ভাইরাল। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, পাড়া-প্রতিবেশী ও পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে নিয়ম মেনে মালা বদলের অনুষ্ঠান হচ্ছে। আর এর মাঝেই এক যুবক সোজা ঢুকে এসে দাঁড়িয়ে পড়ে হবু বর-বউয়ের মাঝে। আর তারপরেই ঘটায় এই অদ্ভুত ঘটনা। যুবকটি নিজের হাতে থাকা প্লাস্টিক থেকে সিঁদুর বার করে মেয়েটির সিঁথিতে পড়িয়ে দেয়। মেয়েটি বাধা দিতে চাইলেও তাকে জোর করেই পরিয়ে দেয় সিঁদুর। যুবকটি আর কেউ নয় মেয়েটিরই প্রাক্তন প্রেমিক। এই ঘটনা ঘটার পর কিছুক্ষণের জন্য হলেও স্তম্ভিত হয়ে গিয়েছিলেন সকলে। সম্বিৎ ফিরতেই ছেলেটিকে মারতে শুরু করেন বিয়ের মঞ্চে থাকা মেয়েটির পরিবারের সদস্যরা।

চোখের সামনে এমন দৃশ্য দেখে ঐ বিয়েবাড়িতে উপস্থিত কোন এক ব্যক্তি ক্যামেরাবন্দি করেছেন এই ঘটনাটি। এই ভিডিও শেয়ার হওয়ার পরেই চক্ষু চড়কগাছ হয়েছে নেটিজেনদের একাংশের। বিভিন্নজন বিভিন্ন মত পোষণ করেছেন এই ভিডিওটি দেখে। একজন বলেছেন, যদি মেয়েটি সত্যিই ভালবাসতো ছেলেটিকে তাহলে এমন ঘটনা কখনোই ঘটতো না। অন্য আরেকজন সোজাসুজি বলেছেন, ইউপিতে সবই সম্ভব। একজন তো মজার ছলে এই যুবকটিকে গোরখপুরের সালমান খান বলে সম্বোধন করেছেন। এই ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই এমন বিভিন্ন মন্তব্য দেখা গিয়েছে কমেন্টবক্সে। অবশ্য, এই ঘটনার পর মেয়েটির শেষ পর্যন্ত কার সাথে বিয়ে হয়েছিল তা জানা যায়নি।

Back to top button