ভাইরাল

মায়ের আঁচলে চাল দিয়ে কনে বললেন অষ্টমঙ্গলায় স্বামীকে নিয়ে আসব তখন ফ্রায়েড রাইস খাবেন! সমাজের বস্তাপচা নিয়মকে বুড়ো আঁঙুল দেখিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া কাঁপালো এক নববধূ

সোশ্যাল মিডিয়া এখন আমাদের নিত্যদিনের জীবনের একটা গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা এমন অনেক ঘটনার দৃশ্য দেখতে পাই যা রীতিমতো আমাদের মন ভালো করে দেয়। আর এখন বিয়ের মরশুম চলছে। আর এই সময়ে বিয়ে বাড়ির কোন ভিডিও ভাইরাল হবে না তা হতেই পারে না। এবার এক নববধূ কনকাঞ্জলি দিয়েই হিট হলো সোশ্যাল মিডিয়ায়।

বিয়ে মানেই হাজারো নিয়ম। আশীর্বাদ, দধিমঙ্গল, নান্নিমুখ, গায়ে হলুদ, বর বরণ, শুভদৃষ্টি, মালাবদল, সম্প্রদান, খই পরানো, সাত পাকে ঘোরা, সিঁদুর দান, বাসি বিয়ে, কন্যা বিদায়, কনকাঞ্জলি সহ আরো নানা নিয়ম। তবে এত সব নিয়মের মাঝে কনকাঞ্জলি একটা গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম।

তবে কথাতেই রয়েছে ‘নিয়ম তৈরি হয় ভাঙার জন্য’, তাই এক্ষেত্রে নববধূ এক নতুন নিয়ম জারি করল বিয়ের পরেই। সে সকলের সামনে কনকাঞ্জলি দেওয়ার সময় বলে উঠলো, “এতদিন যা খেয়েছি শোধ করে দিতে পারলাম না”। অবশ্য নিয়ম অনুযায়ী সে তিনবারই বলেছে কথাটা। কথার শেষে সে বলে, “যে চালটা দিয়ে গেলাম দিদাকে বোলো সেটা দিয়ে ফ্রাইড রাইস করে রাখতে অষ্টমঙ্গলায় এসে খাবো।” তার এই কথা শুনে কন্যা বিদায়ের সময় সকলে কাঁদার বদলে হেসেই যাচ্ছিলেন। গাড়ি করে যাওয়ার সময়ও সে সকলকে টাটা করতে করতে, ফ্লাইং কিস দিতে দিতে গেছে। এমন মেয়ে বাড়িতে থাকলে সকলেরই মন আনন্দে ভরে থাকবে সবসময়।

এমন ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হলে তা তো ভাইরাল হবেই। এই ভিডিও রীতিমতো মন ভালো করে দিয়েছে সকলের। সমাজকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নিয়ম ভেঙেছে সে। তবে সব নিয়ম ভঙা খারাপ হয় না। কারণ আমাদের সমাজের এমন কিছু কিছু নিয়ম রয়েছে যা সত্যিই ভেঙে দেওয়া প্রয়োজন। মজার ছলে ভিডিওটি বানানো হলেও কথাটা সত্যি। একজন সন্তানের পক্ষে বাবা-মায়ের ঋণ কখনোই শোধ করা সম্ভব নয়।

Back to top button