পিএইচডি স্কলারশিপের টাকায় করোনা আক্রান্ত মানুষের পাশে কলকাতার মেয়ে সোহিনী! গড়লেন মানবিকতার অনন্য নজির

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাজেহাল ভারত। অন্যান্য রাজ্যের মত পশ্চিমবঙ্গেও করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা সহস্রাধিক। জেলায় জেলায় হাহাকার পড়ে গিয়েছে অক্সিজেন কিংবা হসপিটালের বেডের জন্য। পাশাপাশি একই পরিবারের একাধিক সদস্য করোনা আক্রান্ত হওয়ায় অনেকক্ষেত্রেই দুপুর কিংবা রাতের খাবার জোগাড় করতে ঘাম ছুটছে সেসব পরিবারের সদস্যদের।

তবে মানুষের জন্য মানুষ এগিয়ে এলে যে কোন কঠিন পরিস্থিতিও সহজ হয়ে যায়। এরকমই পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এলেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডি ছাত্রী সোহিনী বোস। নিজের পিএইচডি স্কলারশিপের টাকাটুকুও দান করলেন করোনা আক্রান্ত মানুষের সাহায্যার্থে।

সংবাদমাধ্যমকে সোহিনী জানিয়েছেন তার পাশে দাঁড়িয়েছেন তার কিছু বন্ধু এবং স্থানীয় কাউন্সিলর, যারা টাকা দিয়ে তার এই মহান উদ্যোগকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করেছেন।

তবে লোকবলের দিক থেকে সোহিনী একা। তাই একার উদ্যোগেই কলকাতা থেকে তিনি পৌঁছে গিয়েছেন বরানগরে গত ১৩ই মে। বরানগরের বস্তি এলাকায় প্রায় ২০০ টি পরিবারের কাছে তিনি শুকনো খাবার, স্যানিটাইজার, সাবান এবং ড্রাই ফ্রুটস পৌঁছে দিয়েছেন।

মানুষ যখন করোনা আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে অপর মানুষকে এড়িয়ে চলছে তখন সোহিনী প্রাণের ভয় না করেই মানুষের বাড়ি বাড়ি ঢুকে তাদের সাহায্য করেছেন। শুধুমাত্র বরানগরের বস্তি এলাকাই নয়, পাশাপাশি রাস্তায় থাকা অসহায় গরিব মানুষদেরও পাশে দাঁড়িয়েছেন তিনি। সাহায্য করার ক্ষেত্রে কোনো ভেদাভেদ করেননি।

ভবিষ্যতে এই একইভাবে মানুষের পাশে দাঁড়াতে চান সোহিনী। তবে তার কাজটা অনেক ক্ষেত্রেই সহজ হবে যদি আরো কিছু মানুষ এগিয়ে আসেন তার সঙ্গে। শুধুমাত্র টাকা পয়সা বা লোকবল নয়, মনোবলটাও অনেক ক্ষেত্রে জরুরি। পাশাপাশি সোহিনীর এই কাজের মাধ্যমে যদি সমাজের আরো কিছু মানুষ উৎসাহিত হয়ে এগিয়ে আসেন তবে এই মহামারী পরিস্থিতিকে কাটিয়ে ওঠা অনেকাংশেই সহজ হবে।