Story

ধর্ষণ নিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকেও দিয়েছিলেন যোগ্য জবাব! জনপ্রিয় অভিনেতার পাশাপাশি সিদ্ধার্থ শুক্লা ছিলেন এক প্রতিবাদী চরিত্রও, ভুল দেখলে তার প্রতিবাদ করার ক্ষেত্রে দুবার ভাবতেন না

একজন ভালো অভিনেতা হওয়ার পাশাপাশি সিদ্ধার্থ শুক্লা ছিলেন একজন প্রতিবাদী মানুষ। এই প্রতিবাদী সত্বার জন্য মাঝে মাঝেই শিরোনামে উঠে আসেন এই অভিনেতা। একবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ধর্ষণের ক্রমবর্ধমান মামলা সম্পর্কে তার চিন্তাভাবনা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন এই অভিনেতা। যা নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়েগিয়েছিল মানুষের মধ্যে। মিডিয়াতে এই নিয়ে আলোচনা হয়েছিল প্রচুর। তবে কোনো কিছুই তাকে কোনদিন দমিয়ে রাখতে পারেনি। যেটা ঠিক তার জন্য চিরকাল গলা উঁচিয়ে কথা বলেছেন এই অভিনেতা।

বেশ কয়েক মাস আগে ধর্ষণের ক্রমবর্ধমান মামলা সম্পর্কে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ভাবনা ও খবরের কাগজে তার লেখার তীব্র সমালোচনা করেছিলেন সিদ্ধার্থ শুক্লা। সোশ্যাল মিডিয়ায় পাক প্রধানমন্ত্রীকে যোগ্য জবাব দিয়েছিলেন। যা নিয়ে ঐ সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড় হয়ে গিয়েছিল। অভিনেতা সিদ্ধার্থ শুক্লা নিউইয়র্ক টাইমসের একটি টুইটের জবাব দিয়েছিলেন।

যে টুইটে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, “প্রত্যেক মানুষের ইচ্ছাশক্তি নেই। যদি আপনি অশ্লীলতা বাড়ান তাহলে পরিণতি ভোগ করতে হবে।” এর উত্তরে অভিনেতা লিখেছিলেন যে সমস্ত পুরুষের ইচ্ছা শক্তি নেই তাদের নিক্ষেপ করার কথা।

মাত্র ৪০ বছর বয়সে এমন তরুণ ও সাহসী অভিনেতার প্রয়ানে শোকস্তব্ধ গোটা ইন্ডাস্ট্রি। তার অগণিত ভক্তগন রীতিমতো শক পেয়েছেন এই খবরে। বৃহস্পতিবার সকালে তার মৃত্যুর খবর প্রকাশে আসামাত্রই ভক্তদের ভীড় জমেছিল তার বাড়ির নীচে। এদিন ইন্ডাস্ট্রির বহু তারকার এসেছিলেন তার বাড়িতে। বুধবার রাতে নিজের মায়ের সাথে বাড়ির নীচে সময় কাটিয়েছিলেন অভিনেতা। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হঠাৎ করে তার চলে যাওয়া মেনে নিতে পারছেন না কেউই। ইতিমধ্যেই মুম্বাই পুলিশ তদন্ত করতে শুরু করেছেন। তার পরিবারের লোকজন, প্রতিবেশী, সহকর্মী এবং বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে কথা বলছে পুলিশ। এখনো সেভাবে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

Back to top button