Story

বাবা অসুস্থ! রুমানার বেঁচে থাকার সংগ্রামের গল্প, রিক্সা চালিয়ে হাল ধরেছে অভাবের সংসারের

আজকাল সমাজে দুবেলা দুমুঠো খেয়ে বেঁচে থাকা বেশ কঠিন। আজও এ সমাজে মেয়েদের অনেক ধরণের কথাই শুনতে হয় সেটা কারণে হোক বা অকারণে। সংসারে অভাব থাকলে পেটের দায়ে কাজে নামতে হয় সংসারের সবাইকেই। সেরকম এক গরিব পরিবারের কথাই আজ আমরা জানব। নিজের মা এবং ছোট ছোট ভাই বোনদের মুখে দু’বেলা দু’মুঠো খাবার তুলে দেওয়ার জন্য রিক্সা চালিয়ে রোজগার করেন রুমানা। এই মেয়েটি তার পরিবারকে নিয়ে ঢাকা শহরে থাকেন। তারা ঢাকা শহরের তেজকুনি পাড়া, খেলাঘর মাঠ, ফান গেটের ঐখানে থাকেন।

রুমানার মা মানসিক ভারসাম্যহীন এবং তার ভাই-বোনেরা খুব ছোট হওয়ায় তাকেই সংসারের হাল ধরতে হয়েছে। তার বাবা তাদের ছেড়ে চলে গেছেন বেশ কয়েক বছর। অভাবের কারণে সে তার ভাই-বোনকে পড়াশোনা করাতে পারে না। তার ইচ্ছা সে ভালো কাজ করে তার মা ভাই বোনদের ভালো জায়গায় নিয়ে যাবেন এবং পড়াশোনা করাবেন। রুমানার কথায় সে তার এক ফুফির কাছে থাকে। আর সে যে রিক্সাটা চালায় সেটা তার ফুফিরই। দিনে প্রায় ১২ ঘন্টা সে রিক্সা চালায়। দিনে সে রোজগার করে ৬০০-৭০০ টাকা। রিক্সা জমা দিয়ে তার হাতে থাকে ৩০০-৪০০ টাকা। এই টাকায় তাদের সংসার চলে তবে খুব কষ্ট করে।

ভিডিওটিতে যখন রুমানাকে বিয়ে করার কথা বলা হয় তখন সে বলে সে তার ভাই বোনদের ভালো জায়গায় নিয়ে যাবে পড়াশোনা শেখাবে যাতে তারা ভালো চাকরি করে খেতে পারে রিক্সা যেন চালাতে না হয়, তারপর সে বিয়ে করবে। তাকে যখন জিজ্ঞাসা করা হয়ে যে তাকে কেউ সাহায্য করতে চাইলে কিভাবে করবে তখন সে একটা নম্বর বলে- ০১৬৪৩৯৪৬৮১৭। রুমানার জীবন সংগ্রাম জারি আছে। এ সমাজে সে অনেক লোকের ভালো খারাপ কথা শোনার পরও সৎ পথে খেটে খাচ্ছে। রুমানার মতো মেয়েদের জীবন সংগ্রাম চলতে থাকুক জেতার আশায়।

Back to top button