‘অঞ্জন চৌধুরীর মেয়ে বলেই সিনেমায় আসতে পেরেছি’! নেপোটিসমের কথা প্রকাশ্যে স্বীকার করলেন অভিনেত্রী চুমকি চৌধুরী

নব্বইয়ের দশকে বাংলা সিনেমায় অভিনেত্রী চুমকি চৌধুরীর উপস্থিতি ছিল অনিবার্য। প্রসেনজিৎ থেকে শুরু করে চিরঞ্জিত চক্রবর্তী, টলিউডের সমস্ত প্রথম সারির নায়কের সঙ্গে কাজ করে ফেলেছিলেন চুমকি।

সম্প্রতি জি বাংলার রিয়েলিটি শো ‘দিদি নাম্বার ওয়ানে’ এসে সঞ্চালিকা রচনা ব্যানার্জির সঙ্গে অত সিনেমায় কাজ করার পেছনের রহস্য খোলাখুলি বললেন চুমকি।

জানালেন তিনি অভিনেত্রী হতে পারতেন না যদি না তার বাবা পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী তাকে সহায়তা করতেন। নব্বইয়ের দশকে চুমকির পাশাপাশি চুমকির বোন রিনা চৌধুরীও কাঁপিয়েছেন টলিউড। আর তার পেছনের সমস্ত কৃতিত্ব চুমকি দিয়েছেন তার বাবাকে।

পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী টলিউডের বোধহয় এমন কোন অভিনেতা অভিনেত্রী নেই যার সঙ্গে কাজ করেননি। তার সমস্ত বড় প্রজেক্ট এই নায়িকা হিসেবে দেখা গেছে তার দুই মেয়ে চুমকি অথবা রিনার মধ্যে একজনকে।

প্রসঙ্গত দীর্ঘদিন এরপর অভিনয় জগৎ থেকে উধাও হয়েছিলেন চুমকি। সে প্রসঙ্গে এদিন রচনা ব্যানার্জিকে তিনি জানান অভিনেত্রী হওয়ার থেকে শিক্ষিকা কিংবা গৃহবধূ হওয়ার দিকে টান বেশি ছিল তার। যে কারণে ঘরের সমস্ত কাজ, রান্নাবান্না, সেলাই ইত্যাদি তাকে আকৃষ্ট করত বেশি।

সিনেমা জগৎ থেকে বিরতি নিয়ে চুমকি মন দিয়েছিলেন সংসারে। এরপর স্টার জলসার ধারাবাহিক ‘সাঁঝের বাতি’তে দীর্ঘদিন পরে দেখা গিয়েছিল তাকে।

তাকে পর্দায় দেখে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছিল দর্শকমহলে। তবে চুমকি কিন্তু এদিন জানিয়েছেন অভিনয় জগতের পাশাপাশি নিজের সংসারকেও তিনি সমান ভালোবাসেন এবং পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে পছন্দ করেন।