অধ্যাপিকা থেকে সিরিয়ালের গল্পকার! লীনা গঙ্গোপাধ্যায় এর জীবন সিরিয়ালের গল্পের মতই বর্ণময়

একসময় বাড়ির লোকের সঙ্গে নিয়মিত তো ঝগড়া লাগতো সিরিয়াল না দেখার কারণে। আর আজ তার হাতেই দর্শকের প্রিয় ‘শ্রীময়ী’, ‘খরকুটো’ সহ একাধিক সিরিয়াল এর দায়ভার। তার কলমের আঁচড়ে তৈরি হয় দর্শকের প্রিয় চরিত্রদের ভবিষ্যৎ।

তিনি হলেন বাংলা সিরিয়ালের চিত্রনাট্যকার লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। কমলা গার্লস স্কুল এবং সিস্টার নিবেদিতা হাই স্কুল থেকে পড়াশোনার পর তিনি বাংলায় স্নাতক হয়েছিলেন রামকৃষ্ণ মিশন থেকে। পড়াশুনার প্রতি তীব্র আকর্ষণ থাকার কারণে বেছে নেন শিক্ষকতা। নিযুক্ত হন একটি কলেজের অধ্যাপিকা হিসেবে।

এর পর হঠাৎই তার কাছে আসে ‘সোনার হরিণ’ ধারাবাহিকটির গল্প লেখার সুযোগ। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি লীনা গঙ্গোপাধ্যায়কে। ধারাবাহিকের চিত্রনাট্যকার হয়ে উঠবেন বলে একসময় ছেড়ে দেন কলেজে পড়ানোর চাকরিটাও।

লীনা গঙ্গোপাধ্যায় নিজেকে বরাবর স্বাধীনচেতা বলে দাবি করেন। কার্যক্ষেত্রে তিনি অন্য কারোর অধীনে কাজ করবেন না বলে এক সময় খুলে ফেলেন নিজের প্রোডাকশন হাউজ। নাম দেন ‘ম্যাজিক মোমেন্টস’।

সেখান থেকেই বাংলা ধারাবাহিকের ইতিহাসে একের পর এক অত্যন্ত জনপ্রিয় ধারাবাহিক তৈরি করেন তিনি। শুধু গল্প লেখা নয়, পাশাপাশি দায়িত্ব নিয়েছেন পরিচালনা এবং প্রযোজনারও।

‘কেয়া পাতার নৌকো’, ‘শ্রীময়ী’ ‘খরকুটো’, ‘নকশি কাঁথা’, ‘জল নুপুর’ সহ একাধিক সিরিয়ালের গল্প লেখার পাশাপাশি প্রযোজনাও করেছেন তিনি। একসঙ্গে একাধিক সিরিয়ালের গল্প একটানা লিখতে পারবার জন্য বেশ খ্যাতি আছে তার। পাশাপাশি নিজের প্রযোজনার ব্যবসাতে যোগদান করিয়েছেন ছেলে অর্ক এবং পুত্রবধূ অভিনেত্রী দেবযানীকেও।