Story

বলিউড অভিনেত্রী জুহি চাওলার ফেরানো প্রস্তাব লুফে নিয়েছিলেন টলিউডের রূপা গাঙ্গুলী, বর্তমানে আজও দর্শকের মনে দ্রৌপদীর চরিত্রে রয়ে গিয়েছেন রূপা গাঙ্গুলী

টলিউডের বড় পর্দার অতি পরিচিত একটি মুখ হলো রূপা গাঙ্গুলী। নিজের অভিনয় ক্যারিয়ারে তিনি প্রচুর ভালো ভালো কাজ করছেন। অভিনয় জগতে আসার আগেই তিনি ছিলেন একজন সায়েন্সের স্টুডেন্ট। লাইট, ক্যামেরা এসবের সামনে আসার তার কোনো দিনই ইচ্ছে ছিল না। এমনকি সিনেমা তার পছন্দের বিষয় মধ্যেই ছিল না তিনি ভালবাসতেন রবীন্দ্র সংগীত।

শেষে গ্রাজুয়েশনের পরে পরিবার এবং আত্মীয়-স্বজনদের জোরাজুরিতে অডিশন দিয়েছিলেন তিনি। এরপর টেলিভিশনের শর্ট স্টোরি দিয়ে নিজের অভিনয় জগতের ক্যারিয়ার শুরু করেন। এরপর সুযোগ আসে বিজয় চক্রবর্তীর ‘নিরুপমা’ ছবিতে অভিনয় করার।

সেই ছবির মাধ্যমেই প্রথম টেলিভিশনের বড়পর্দায় পা রাখেন রূপা গাঙ্গুলী। একটি পারিবারিক অনুষ্ঠান সূত্রে পরিচালক বিজয় চক্রবর্তীর সঙ্গে আলাপ হয় তার সেখান থেকেই আসে সিনেমার প্রস্তাব। যেহেতু লাইট ক্যামেরা সিনেমা জগৎ সম্পর্কে তার কোনো ধারণাই ছিল না তাই প্রথমে একটু ইতস্তত করেন কিন্তু পরে স্ক্রিপ্ট শোনার পর নিরুপমা ছবির নায়িকা চরিত্রের জন্য রাজি হন তিনি।

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় সঙ্গেও স্ক্রিন শেয়ার করেছেন রূপা গাঙ্গুলী। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা ছোটগল্প ‘দেনা পাওনা’ অবলম্বনে ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। পরবর্তীকালে রবীন্দ্রনাথের একটি ছোটগল্প ‘স্ত্রীর পত্র’ অবলম্বনে নির্মিত হিন্দি ছবিতে কাজ করেছেন রূপা গাঙ্গুলী। ১৯৮৫-২০১৫ সাল পর্যন্ত মোট ৪০ টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। শুধুমাত্র বাংলা ছবি নয় হিন্দি ইংলিশ কানাডা বিভিন্ন ভাষার ছবিতে অভিনয় করেছেন রূপা গাঙ্গুলী।

বিভিন্ন ছবিতে অভিনয় করার পরও দর্শকের মনে রুপা গাঙ্গুলীর ধ্রুপদী চরিত্রে অভিনয় আজও সতেজ হয়ে রয়েছে। ১৯৮৮ সাল নাগাদ টেলিভিশনের একটি গণদেবতা নামে হিন্দি ধারাবাহিকে কাজ করতেন তিনি, ঠিক তখনই বি আর চোপড়ার প্রযোজনা সংস্থার নজরে আসেন। সারাদেশের ২০০ জন অভিনেত্রীর অডিশন না হয় ছিল শুধুমাত্র দ্রৌপদীর ভূমিকায় অভিনয় করার জন্য, সেই ২০০ জনের মধ্যে রূপা গাঙ্গুলী কে অবশেষে দ্রৌপদী চরিত্রের জন্য বাছাই করা হয়।

শোনা গিয়েছে এই দ্রৌপদীর চরিত্রে অভিনয় করার জন্য প্রথমে জুহি চাওলার কাছে অফার করা হয়েছিল। কিন্তু সেই সময় তিনি নাকচ করে দেন, কারন তার হাতে সেই মুহূর্তে ‘কেয়া মত সে কেয়ামত তাক’ ছবি ছিল। তাই সেই সুযোগ আসে রূপা গাঙ্গুলীর কাছে, আর ওই দ্রৌপদী চরিত্রই দর্শকের কাছে রূপা গাঙ্গুলী কে চিরস্মরণীয় করে রাখে।

বর্তমানে বেশ কয়েক বছর ধরেই রাজনৈতিক ময়দানে নেমেছেন অভিনেত্রী রুপা গঙ্গুলি। ২০১৫ সাল থেকেই ভারতীয় জনতা পার্টির হয়ে কাজ করেন তিনি। বর্তমানে অভিনয় জগৎ থেকে সরে এসে পুরো সময়টাই রাজনৈতিক ময়দানে কাটাচ্ছেন। টেলিভিশনের পর্দায় সফলতা আসলে নিজের ব্যক্তিগত জীবন বহু জটিলতা রয়েছে তার।

সাইন্স নিয়ে পড়াশোনা করার পরে অভিনয় জগতে আসা, তারপরে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার ধ্রুব মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। বৈবাহিক জীবনের ১৫ বছর পর তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে এরপর শোনা গিয়েছিল নিজের চেয়ে ১৩ বছরের ছোট এক গায়ক কে তিনি ভালোবেসে ছিলেন, তার সঙ্গে লিভ ইন ও করেছিলেন তবে সেই সম্পর্ক বেশি দিন টেকেনি। বর্তমানে একাই নিজের জীবন কাটাচ্ছেন রূপা গাঙ্গুলী।

Back to top button