জীবনের সমস্ত প্রতিকূলতাকে জয় করে আজ ভারতের জনপ্রিয় গায়িকা তিনি, সফর শুরু হয়েছিল ‘সারেগামাপা’-র মঞ্চ থেকে, ভাইরাল পুরোনো সেই ভিডিও

“শ্রেয়া ঘোষাল” ভারতের জনপ্রিয় গায়িকা তিনি। হিন্দি, বাংলা, ওড়িয়া, তামিল, কন্নড় সব মিলিয়ে মোট ২০টি ভাষায় প্রায় হাজারেরও বেশি গান গেয়েছেন এখনো অবধি। তার গলার জাদুতে যে কেউ মুগ্ধ হয়ে যেতে পারে।

শুধু রোম্যান্টিক গানই নয় আইটেম সং ও রয়েছে শ্রেয়ার ঝুলিতে। মিউজিক ডিরেক্টারদের লাইন লেগে থাকে তাকে দিয়ে গান গাওয়ানোর জন্য। যে কোনো সাধারণ গানকে অসাধারণ করে দিতে পারেন তিনি এই রকম ক্ষমতা রাখেন তিনি।

বাঙালি মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে শ্রেয়া। ছোট বয়েস থেকেই গানের প্রতি অনুরাগ তৈরী হয় শ্রেয়ার। মাত্র ৪ বছর বয়েস থেকেই সংগীতচর্চা শুরু করে শ্রেয়া। ৬ বছর বয়স থেকেই শাস্ত্রীয় সংগীত চর্চা শুরু করেদেন তিনি।

মাত্র ১৬ বছর বয়েসে টিভি রিয়ালিটি শো ‘সারেগামাপা’-তে পৌঁছে যান তিনি। এই টিভি শো-রই একটি ভিডিও ছড়িয়ে পরে সোশ্যাল মিডিয়াতে। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে শ্রেয়া প্রতিযোগীদের সঙ্গে বসে রয়েছেন এবং সগীতশিল্পী সোনু নিগম সঞ্চালনা করছেন।

নিজের গানের জাদুতে ‘সারেগামাপা’-র মঞ্চে বিজেতা হন শ্রেয়া ব্যাস আর তাকে ফিরে তাকাতে হয়নি, ‘সারেগামাপা’-র মঞ্চে বিখ্যাত পরিচালক সঞ্জয় লীলা ভনশালীর মা-র শ্রেয়ার গানের গলা অত্যন্ত পছন্দ হয়ে যায় এবং তার কথাতেই ২০০২ সালে সঞ্জয় লীলা ভনশালী পরিচালিত “দেবদাস” সিনেমায় প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসেবে ডেবিউ করেন।

বাস সেই যে শুরু আর তার শেষ হয়নি এখনো অবধি অগুনতি হিট গান গেয়েছেন শ্রেয়া। রোমান্টিক থেকে স্যাড, মেলোডি থেকে আধুনিক আজ নিজের গলার জাদুতে মাতিয়ে রেখেছেন তিনি।

নিজের ছোটবেলার বন্ধু শিলাদিত্যর সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন গায়িকা। দাম্পত্য জীবন বেশ হাসি খুশিতেই কাটছে তার। কিছুদিন আগেই কল এল করে এসেছে পুত্র সন্তান।

যা নিজেই সোশ্যালমিডিয়াতে শেয়ার করে জানিয়েছেন গায়িকা। তার ‘সারেগামা’-র ভিডিওটি দেখে অনেকে এমন বলেছেন কেউ কি জানতো এই ১৬ বছরের বাচ্চা মেয়েটি একদিন এতো জনপ্রিয় হয়ে উঠবে।