Story

দিদি নাম্বার ওয়ানের মঞ্চে এসে নিজের জীবন সংগ্রামের কথা তুলে ধরলেন অভিনেত্রী অমৃতা দেবনাথ, আপনাদের প্রিয় স্টার জলসার ‘মন ফাগুন’ ধারাবাহিকের অনুষ্কা

প্রতি সপ্তাহের ধারাবাহিকগুলি দর্শকদের অত্যন্ত পছন্দের। কিন্তু প্রতিদিন ধারাবাহিক দেখতে দেখতে একঘেয়েমি চলে আসে। তাই এই একঘেয়েমি গুলি দূর করতেই দর্শকদের কাছে চলে আসে রিয়েলিটি শো গুলি। আর বাংলা রিয়ালিটি শো গুলির মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় হলো জি বাংলা দিদি নাম্বার ওয়ান। দীর্ঘ ১০ বছর ধরে এই রিয়েলিটি শো হয়ে আসছে। সঞ্চালিকা রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঞ্চালনায় এই শো যেন আরো অন্যরকম মাত্রা পায়। দিদি নাম্বার ওয়ান এর মঞ্চে প্রতিদিনই সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সেলিব্রেটি দিদিরা খেলতে আসে।

আর মাঝেমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলাতে দিদি নাম্বার ওয়ান এর বিভিন্ন পুরনো ভিডিওগুলি ভাইরাল হয়ে পড়ে নিমেষের মধ্যেই। সেরকমই একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি এপিসোডে খেলতে এসেছিল মন ফাগুন ধারাবাহিকের পিহুর বোন অনুষ্কা অর্থাৎ অভিনেত্রী অমৃতা দেবনাথ। দিদি নাম্বার ওয়ান এর মঞ্চে এসে নিজের জীবনের সংগ্রামের কথা সকলে সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন অভিনেত্রী।

নিজের জীবনের অনেক ওঠাপড়ার গল্প দিদি নাম্বার ওয়ান এর মঞ্চে এসে ভাগ করে নিয়েছেন অমৃতা। আদতে তিনি হল আলিপুরদুয়ারের মেয়ে। কাজের সূত্রেই কলকাতাতে থাকা। স্টার জলসার আগে জি বাংলার বকুল কথা ধারাবাহীকে বকুলের ননদ এশার চরিত্রে অভিনয় করেছিল অনুষ্কা। সেখানেও বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন অভিনেত্রী। তারপর থেকেই তার জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। তবে আজ অভিনীত যতটা সফল তার কয়েক বছর আগে পর্যন্ত কঠিন লড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে কাটাতে হয়েছে। সেই কথা মনে করেই চোখে জল চলে এলো অমৃতার।

অমৃতা ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে পড়াশোনা করেছিলেন। বাবার একটা সামান্য চাকরি ছিল তা দিয়ে পড়াশোনা সব খরচ চালানো যাচ্ছিল না সেই সময় তাকে সাহায্য করেছিল তার নিজের জ্যাঠামশাই। কষ্ট হলেও বাবা-মার সামনে কখনো চোখের জল ফেলেননি অমৃতা। লুকিয়ে আড়ালে কাদতেঁন। কলকাতায় এসে ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে পড়াশোনা করে। এরপর কলেজে পড়াকালীন ২০১৬ সালে হঠাৎই তার বাবার চাকরি চলে যায়। সে সময় খুবই খারাপ আর্থিক অবস্থার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলেন অমৃতা এবং তার পরিবার। সেই সময় অমৃতাই তার বাড়ির একমাত্র উপার্জনকারী হয়ে ওঠে। এরপরে ২০১৭ সালে প্রথম দেবীপক্ষ ধারাবাহিকের মাধ্যমে অভিনয় জগতে আসেন অমৃতা। তারপর থেকেই তার কাজ শুরু।

Back to top button