Story

গরীব বলে মানুষ তার দরিদ্রতা নিয়ে মজা করত! মেকানিক থেকে এই ভারতীয় আজ বুর্জ খলিফার ২২ টি ফ্ল্যাটের মালিক

সোশ্যাল মিডিয়া হলো এমন একটি মাধ্যম যার মাধ্যমে আমরা জানতে পারি এমন অনেক ঘটনার কথা যা হয়তো সচরাচর বাড়িতে বসে আমাদের চারপাশে আমরা ঘটতে দেখি না বা জানতে পারি না। এমন অনেক অপরিচিত মানুষের পরিচয় পাই যা জানার পর সত্যিই ভালো লাগে।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে এমন অনেক গল্পের কথা জানতে পারি আমাদের উদ্বুদ্ধ করে তোলে নিজেদের জীবনে এগিয়ে যেতে। আজ আমরা কথা বলব তেমনি একজন মানুষের জীবন নিয়ে। যিনি শূন্য থেকে শুরু করলেও আজ কোটিপতি।

আজ আমরা জানবো জর্জ ভি মেরাপারামবিলের কথা। যিনি একটি ছোট্ট গ্রামে বেড়ে উঠেছেন। তিনি কেরালার একটি গ্রামে বসবাস করতেন। মাত্র ১১ বছর বয়স থেকে তিনি তার বাবার সঙ্গে কাজ করতেন। তিনি খুবই গরিব পরিবারের ছেলে ছিলেন তাই ছোট থেকেই তাকে শুনতে হয়েছে নানা কথা এবং মেনে নিতে হয়েছে অনেক অপমান।

কিন্তু বর্তমান যুগে তিনি শুধুমাত্র নিজের চেষ্টায় এবং পরিশ্রমের জোরে হয়ে উঠেছেন একজন বিশাল মানুষ। তিনি নিজে হাতে জিও গ্রুপ অফ কোম্পানির সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। জর্জ বলেছিলেন যে, “আমি একজন স্বপ্নদ্রষ্টা এবং আমি কখনো স্বপ্ন দেখতে বন্ধ করব না।”

যে গ্রামে তিনি বসবাস করতেন এখানকার বেশিরভাগ মানুষই ছিলেন কৃষক এবং তাঁতী। তিনি কিছুদিন সুতোর ব্যবসা করেছিলেন। পরে তিনি কোনো এক জায়গায় মেকানিক হিসেবেও কাজ করেছিলেন। তিনি নিজের শুরুর জীবনে এমন ছোট ছোট অনেক ব্যবসায়ী করার চেষ্টা করেছিলেন। তোর পরিশ্রম করার ক্ষমতা এবং ইচ্ছাশক্তি তাকে এত উপরে উঠতে সাহায্য করেছিল।

জর্জের আত্মীয়-স্বজনরা তাকে কটাক্ষ করে বলেছিলেন তিনি কোনদিন বুর্জ খালিফার ঢুকতে পারবেন না। সেই কথাটা তার মনে ভীষণভাবে লেগেছিল। যার জন্যই তার কাজ করার এবং পরিশ্রম করার ইচ্ছাশক্তি বেড়ে গিয়েছিল দ্বিগুণ। পরবর্তীকালে তিনি কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে হয়ে উঠেছেন একজন সফল ব্যবসায়ী। পরবর্তীকালে তিনি বুর্জ খালিফার বাইশটি ফ্ল্যাট নিজের নামে কিনে নেন। যেখানে একদিন তার ঢোকার অনুমতি ছিল না সেখানেই পরবর্তীকালে ২২টি ফ্ল্যাট কিনে সেইসব মানুষের কটাক্ষের যোগ্য জবাব দিয়ে দিয়েছিলেন। তার জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার গল্প অনুপ্রাণিত করে সকল মানুষদের।

Back to top button